ঢাকা | জুলাই ১৪, ২০২৪ - ১০:৪৩ অপরাহ্ন

বগুড়ায় দেয়ালে হুমকির পোস্টার লাগানোর ঘটনায় আটক এক

  • আপডেট: Friday, November 17, 2023 - 2:00 pm

অনলাইন ডেস্ক: বগুড়ার কাহালু উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামে অপহরণের হুমকি দিয়ে টাকা চেয়ে দেয়ালে দেয়ালে পোস্টার টানানোর ঘটনায় রবিউল ইসলাম (২৩) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা এক প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আটক রবিউল ইসলাম বগুড়া কাহালু উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি বগুড়ার একটি বেসরকারি পলিটেকনিকের শিক্ষার্থী। পুলিশ জানায়, রবিউল ইসলামের কাছ থেকে চাঁদার দাবিকৃত চারটি পোস্টার, একটি ল্যাপটপ ও একটি পেন ড্রাইভ জব্দ করা হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রবিউল স্বীকার করেছে যে, কিছু এলিট শ্রেণী ও ক্ষমতাধারী লোকজন অন্যায়, অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে সমাজের উন্নয়ন ব্যাহত করছে। সমাজের মানুষ সামাজিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এই শ্রেণীর মানুষদের মধ্যে ভীতি সঞ্চার করার জন্য রবিউল নিজেই বাড়ির দরজায় ও দেয়ালে পোস্টার লাগায়। বুধবার (১৫ নভেম্বর) রাত আড়াইটার দিকে বিষ্ণুপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাকে আটক করে।

কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা জানান, আটক রবিউল ইসলামকে আদালতে পাঠানো হবে।

এর আগে গত ১ অক্টোবর বিষ্ণুপুর গ্রামের ৩০০-৪০০ ঘরের দেয়ালে পোস্টার লাগানো দেখা যায়। সেখানে লেখা, ’আসসালামু আলাইকুম, সর্বনিম্ন ২০০ থেকে ৫০০০ টাকা ৬ তারিখের মধ্যে দিতে হবে। না হলে ৭ তারিখ থেকে আপনাদের ছেলে-মেয়ে হারিয়ে গেলে আমার কোনো কিছু করার থাকবে না। আমি বা আমরা কে সেটা না খুঁজে আমি যা বলছি সেটা করার চেষ্টা করেন। তাহলে কিচ্ছু হবে না। অল্প কিছু টাকার জন্য বাচ্চাদের বিপদে ফেলবেন না।

যদি ছেলে-মেয়েদের মঙ্গল চান তাহলে লোয়া পুকুরে সোলার লাইটের সঙ্গে যে বক্স থাকবে নিজের টাকার সঙ্গে নাম কাগজে লিখে ওই বক্সে ফেলবেন। আর নিজের বাচ্চাকে সুরক্ষিত রাখুন। আমার এই কাগজ আপনি পড়ছেন, তাহলে মনে করেন আপনার ছেলে-মেয়েকে তুলে আনতেও পারব। দয়া করে টাকাটা দিয়েন আমরা ছেলেগুলা ভালো না। ভালো থাকবেন ৬ তারিখ পর্যন্ত, আল্লাহ হাফেজ। ’ এরপর ইংরেজিতে Shadow লেখা দেখা যায় পোস্টারে।

পরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে বাড়ির দেয়ালে এমন পোস্টার লাগানো দেখে ভীত এবং আতঙ্কিত হয়ে পড়েন গ্রামবাসীরা। পরে এ ঘটনায় পুলিশ, র‍্যাবসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা মূল হোতাকে ধরতে অভিযান শুরু করে।

সোনালী/জেআর