ঢাকা | জুন ১৪, ২০২৪ - ৯:৫৪ অপরাহ্ন

সব দেশেই জিনিসপত্রের দাম দ্বিগুণ বেড়েছে

  • আপডেট: Saturday, August 27, 2022 - 10:17 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বিশ্বের সব দেশেই জিনিসপত্রের দাম দ্বিগুণ বেড়েছে। কিন্তু বাংলাদেশ ভালো আছে। সামনের দিনে যাতে দেশের মানুষদের দুঃখ-কষ্ট করতে না হয়, সেই জন্য আগেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন।

তিনি বলেন, করোনার আঘাতে আজকে সারাবিশ্বের অর্থনীতি ও মানুষের জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত। কিন্তু বাংলাদেশের অর্থনীতি ঠিক আছে। বাংলাদেশের অর্থনীতি এখনো ৬ ডিজিটের ওপরে গ্রোথ আছে। যেখানে পৃথিবীর বড় বড় রাষ্ট্র মাইনাসে চলে গেছে, আমেরিকা, চায়না, ভারত মাইনাসে।

শনিবার বিকেলে মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ মাঠ প্রাঙ্গণে পৌর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে দেশ পরিচালিত হচ্ছে বিধায় আজকে আমরা বিভিন্ন খাতে উন্নয়নের ছোঁয়া পাচ্ছি। বাংলাদেশে কেউ না খেয়ে থাকে না, লাখ লাখ গৃহহীন মানুষকে ঘর দেয়া হয়েছে। কৃষকরা সার ও বিদ্যুৎ পেয়েছে, জীবন দিতে হয়নি। বিএনপির সময়ে সার ও বিদ্যুতের জন্য কৃষকদের জীবন দিতে হয়েছিল। অনেক লোক মৃত্যুবরণ করেছে, গুলি করে তাদের হত্যা করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, যারা এই দেশের স্বাধীনতা চায়নি, বাংলাদেশের সমৃদ্ধি ও শান্তি চায়নি, তারাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। এই আগস্ট মাসেই প্রধানমন্ত্রীর ওপর গ্রেনেড হামলা ও এই দেশে সিরিজ বোমা হামলা হয়েছিল। সেই গোষ্ঠী রাজাকার-আলবদর, বিএনপির-জামায়াত জোট, তারাই এই দেশের স্বাধীনতা চায়নি। তারাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায়, তখন জিয়াউর রহমান জাতীয় সংসদে ভোটের মাধ্যমে ‘ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ’ বিল পাস করিয়েছিল। যাতে বঙ্গবন্ধুর ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার বিচার না হয়। তারাই রাজাকার-আলবদর ও নিজামীদের ক্ষমতায় নিয়েছিল। এমপি-মন্ত্রী বানিয়েছিল। বাঙালিদের রক্তে যাদের হাত রঞ্জিত ছিল, তাদের গাড়িতে এই দেশের পতাকা ছিল এবং সেই পতাকা তারা পদদলিত করেছিল।

জাহিদ মালেক বলেন, বিএনপির সময় হাজার হাজার টাকা বিদেশে লোপাট করা হয়েছিল। সেই টাকা এই আওয়ামী লীগ সরকার আবার ফেরত এনেছে। তারা একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করতে পারেনি। তাদের সময়ে আমরা দেশের কোনো উন্নয়ন দেখিনি, দেশে খাদ্যের অভাব ছিল। আমাদের মনে রাখতে হবে, আজকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে চলছে। আমরা মধ্যম আয়ের দেশ, আমাদের অনেক অর্জন, সবখাতেই উন্নয়ন করেছে সরকার। মানুষের দোরগোড়ায় চিকিৎসাসেবা পৌঁছে গেছে।

মানিকগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোনায়েম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ ফটো, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতানুল আজম খান আপেল, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুদেব সাহা, সদর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইসরাফিল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আফছার উদ্দিন সরকার, মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারা বেগম, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আব্দুর রাজ্জাক রাজা, যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুবুর রহমান জনি, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক খান তুষার, সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এম এ সিফাত কোরাইশী সুমন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।