ঢাকা | এপ্রিল ১৮, ২০২৪ - ৩:৫৪ পূর্বাহ্ন

সেতু ঢালাইয়ের সময় সেন্টারিং ধসে শ্রমিক নিহত, আশঙ্কাজনক ৩

  • আপডেট: Thursday, April 28, 2022 - 12:55 pm

নলাইন ডেস্ক:  রাঙামাটি-কাপ্তাই সড়কের সদর উপজেলার মগবান ইউনিয়নের বড়াদম এলাকায় নির্মাণাধীন সেতু ঢালাইয়ের সময় সেন্টারিং ধসে ১ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ১৯ জন আহত হন। এরমধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার বড়াদম এলাকায় রাঙামাটি-কাপ্তাই সড়কের একটি গার্ডার সেতুতে সকালে নির্মাণশ্রমিকরা ঢালাইয়ের কাজ করছিলেন। এ সময় হঠাৎ সেতুটি ধসে গিয়ে ২০ জন শ্রমিক আহত হন। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন ও শ্রমিকরা তাদের উদ্ধার করে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। এতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রফিক নামের ১ জন শ্রমিক মারা যান। বাকিরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, রাঙামাটি-কাপ্তাই সড়ক নামে পরিচিত এই সড়কটি এলজিইডির তত্ত্বাবধানে প্রশস্তকরণের কাজ শুরু হয় ২ বছর আগে থেকেই। তবে সড়ক প্রশস্তকরণ ও সেতু নির্মাণে শ্লথগতির কারণে দীর্ঘদিন ধরেই ভোগান্তিতে রয়েছেন যাতায়াতকারীরা। পাহাড়ি সড়ক হওয়ার সড়কের ওপরেই সেতু নির্মাণ করায় বিকল্প সড়ক না থাকায় সড়কের এপাড় থেকে ওপাড়ে পায়ে হেঁটে যাওয়া ছাড়া বিকল্প পথ নেই। এতে দুর্ভোগ ও লোকসানে পড়েছেন।

রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিসিৎসক (আরএমও) ডা. শওকত আকবর বলেন, নির্মাণাধীন সেতু ভেঙে আহত হয়ে ১৯ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এরমধ্যে ১ জন মারা গেছেন। আহতদের মধ্যে ২ থেকে ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবির হোসেন সত্যতা স্বীকার করে জানান, ঢালাইয়ের সময় সেতুর সেন্টারিং ভেঙে গিয়ে ১ জন নিহত ও অপর ২০ জন আহত হয়েছেন।

এদিকে, ঘটনা সম্পর্কে জানতে এ কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এসএস ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী জসিম উদ্দিনের মোবাইলফোনে কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি। অন্যদিকে, এলজিইডির রাঙামাটি সদর উপজেলা প্রকৌশলী প্রণব রায় চৌধুরীকেও ফোনে পাওয়া যায়নি।

সোনালী/জেআর