ঢাকা | জুলাই ২৪, ২০২৪ - ১১:০৭ পূর্বাহ্ন

টেস্টে ফেরা বোলারের জাদুতে বিধ্বস্ত বাংলাদেশ

  • আপডেট: Friday, April 1, 2022 - 10:35 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: দক্ষিণ আফ্রিকার দুই পেসারকে সাবধানে খেলে পার করতে পারলেও হার্মারের স্পিন বিষে খাবি খেয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটাররা। সাড়ে ৬ বছর পর টেস্টে ফিরেই নিজের জাত চেনালেন। স্বাগতিকদের ৩৬৭ রানের জবাবে ব্যাট হাতে নেমে টপঅর্ডারের চারজনকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। আর চারজনই হার্মানের শিকার।

কেবলমাত্র ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়কে শিকার করতে পারেননি তিনি। ১৪১ বলে ৪৪ রানের লড়াকু ইনিংস খেলে দিন শেষ করেছেন জয়। এক কথায় সাড়ে ৬ বছর পর টেস্টে ফেরা বোলারের জাদুতে বিধ্বস্ত বাংলাদেশ। মূলত স্পিনেই ভরসা ডিন এলগারের। ৪৯ ওভারের মধ্যে ৪০ ওভারই করেছেন তিন স্পিনার হার্মার, মহারাজ ও এলগার। দলীয় ২৫ রানের মাথায় সাদমানকে ফেরান হার্মার।

চা-বিরতির ঠিক আগে একাদশ ওভারে হার্মারের ফ্লাইটেড বলের লেংথ বুঝে উঠতে পারেননি সাদমান। সামনে না খেলে তিনি অপেক্ষায় থাকেন পেছনের পায়ে। বল পিচ করে টার্ন না করে একটু নিচু হয়ে সোজা গিয়ে আঘাত করে স্টাম্পে। উদ্বোধনী জুটি শেষ হয় ২৫ রানে।

হারানোর ধাক্কা সামলে দলকে ভালোভাবেই এগিয়ে নিচ্ছিলেন মাহমুদুল হাসান জয় ও নাজমুল হোসেন শান্ত। জয় শুরু থেকেই ব্যাটে-বলে দারুণ মেলাচ্ছিলেন, শান্তও শুরুটা দারুণ করেন। এ জুটি দলকে ১৫.২ ওভারে পঞ্চাশ পর্যন্ত নিয়ে যান। দুজনের দারুণ ব্যাটিংয়ে দল কোনো বিপদ না ঘটিয়ে পৌঁছে যায় আশির ঘরে। আর এসময় ফের বাংলাদেশ শিবিরে আঘাত হানেন হার্মার। দারুণ এক ডেলিভারিতে বোল্ড করে দিলেন তিনি শান্তকে।

হার্মারের ফ্লাইটেড ডেলিভারি মিডল স্টাম্পে পিচ করে সামনে টেনে আনে শান্তকে। পা বাড়িয়ে ডিফেন্স করেন শান্ত। কিন্তু বল দারুণভাবে টার্ন করে শান্তর ব্যাটের পাশ দিয়ে আলতো করে লাগে অফ স্টাম্পের বাইরের অংশে।

দুটি করে বাউন্ডারি ও ছক্কায় ৮৭ বলে ৩৮ রান করেছেন শান্ত। মহারাজের এক ওভার শেষে ফের হার্মারের হ্যামার। এবার অধিনায়ক মুমিনুলকে ক্যাচ আউট করে ফেরালেন হার্মার। রানের খাতাই খুলতে পারলেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক। হার্মারের চতুর্থ শিকার মুশফিকুর রহিম।

৪৬তম ওভারে হার্মারের পঞ্চম ডেলিভারিটি লেগ স্টাম্পে পিচ করে হালকা বেরিয়ে যাওয়া বলে গ্ল্যান্স করার চেষ্টা করেন মুশফিক। বলের গতির কারণে তিনি খেলতে পারেননি ঠিকমতো। উইকেটের পেছনে দারুণ ক্যাচ নেন কাইল ভেরেইনা। জোরাল আবেদনে আম্পায়ার আউট না দিলে রিভিউ নেন হার্মার। রিভিউয়ে দেখা যায়, বল হালকা ছুঁয়ে গেছে মুশফিকের গ্লাভস। ১৯ বলে ৭ রান করে আউট হন মুশফিক। দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪৯ ওভার শেষে ৪ উইকেটে ৯৮ রান।

দিনের শুরুটা বাংলাদেশের জন দারুণ হলেও একশ রানের আগে ৪ উইকেট হারিয়ে হতাশায় শেষ হলো সফরকারীদের। আগামীকাল তৃতীয় দিনে ২৬৯ পিছিয়ে থেকে ব্যাট হাতে নামবেন জয়। তার সঙ্গী তাসকিন আহমেদ।