ঢাকা | জুন ২৫, ২০২৪ - ৫:১২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

চাঁদা না দেওয়ায় বঙ্গবন্ধু ও চার নেতার ম্যুরাল নির্মাণকাজ বন্ধ

  • আপডেট: Tuesday, May 28, 2024 - 11:01 am

স্টাফ রিপোর্টার: চাঁদা না পেয়ে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) কার্যালয়ের সামনে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার ম্যুরাল নির্মাণের কাজ সন্ত্রাসীরা বন্ধ করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সন্ত্রাসীদের ভয়ে ঠিকাদার কাজ করতে পারছেন না। এ নিয়ে পাউবোর পক্ষ থেকে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

রোববার রাতে পাউবো রাজশাহী পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণ শাখার উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুকেশ কুমার নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় এই জিডি করেন। অভিযোগে বলা হয়েছে, রোববার দুপুরে সন্ত্রাসী  জনি, রফিক ও মোস্তাকের নেতৃত্বে  ২০  জনের একটি  দল  রাজশাহী পাউবোর  অফিস চত্বরে প্রবেশ করে। পরে তারা ঠিকাদার ও তদারকি প্রকৌশলীকে অশ্লীল ভাষায় গালাগাল করে এবং কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়। সন্ত্রাসীরা শ্রমিকদের কাজ বন্ধ রেখে চলে যেতে বলে।  শ্রমিকরা  পালিয়ে যান।  সোমবারও শ্রমিকরা কাজে যোগ দেননি। ম্যুরাল নির্মাণের কাজ বন্ধ রয়েছে।

রাজশাহী পাউবো সূত্রে জানা গেছে, ম্যুরাল নির্মাণের কাজটি করছে রাজশাহীর মেসার্স খন্দকার কনস্ট্রাকশন। কনস্ট্রাকশনের  প্রতিনিধি মো. পলাশ জানান, নগরীর বিহারি কলোনি, শালবাগান, উপশহর ও সপুরা এলাকার একটি সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী গ্যাং কয়েক দিন আগে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। তিন দিনের মধ্যে চাঁদার টাকা পৌঁছে দিতে বলেছিল সন্ত্রাসীরা।

রাজশাহী পাউবোর একজন প্রকৌশল কর্মকর্তা জানান, রোববার সন্ত্রাসীরা কর্মকর্তাদের কক্ষে ঢুকে পাউবো ভবন জ্বালিয়ে দেওয়ারও হুমকি দিয়ে গেছেন। সন্ত্রাসীদের ভয়ে কাজ শুরু করতে পারছেন না ঠিকাদারও।

পাউবোর একাধিক ঠিকাদার অভিযোগে জানান, পাউবোর বিভাগীয় কার্যালয়ের আশপাশে অবস্থান করা এই সন্ত্রাসী দলের অত্যাচারে সারা বছর অতিষ্ঠ থাকেন কর্মকর্তারা। রেহাই পান না ঠিকাদাররাও। পাউবো কার্যালয়ের চত্বরে ঢুকে প্রকাশ্যে মাদকের আসর বসায় তারা।

পাউবোর রাজশাহী ঠিকাদার সমিতির সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মাহাফুজুল আলম লোটন বলেন, সন্ত্রাসীরা নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে গিয়ে চাঁদা দাবি করে।

এদিকে ম্যুরাল নির্মাণকাজ যারা বন্ধ করে দিয়েছে তাদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ-সদস্য অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা। তিনি বলেন, বিষয়টা আমি শুনেছি। জঘন্যতম কাজ করেছে তারা। আমি তাদের দ্রুত গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছি পুলিশকে।

বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর বলেন, কারা কাজ বন্ধ করেছে সেটা দেখা হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোনালী/ সা