ঢাকা | জুন ১৬, ২০২৪ - ৫:৫৪ অপরাহ্ন

এমপি আনার খুন: যা বললেন সঞ্জীবা গার্ডেনসের বাসিন্দারা

  • আপডেট: Thursday, May 23, 2024 - 10:49 am

অনলাইন ডেস্ক: ভারতে চিকিৎসা নিতে গিয়ে দমদম বিমানবন্দর লাগোয়া নিউটাউনে রহস্যজনকভাবে খুন হয়েছেন ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ-সদস্য (এমপি) আনোয়ারুল আজিম আনার। স্নায়ুরোগের চিকিৎসা নিতে তিনি ১২ মে দর্শনা-গেদে সীমান্ত দিয়ে কলকাতা যান। কিন্তু পরদিন থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন। মূলত সেদিনই (১৩ মে) তাকে হত্যা করা হয়।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, ওই মহিলা ও সঙ্গীরা বেরিয়ে গেলেও সংসদ-সদস্য ফ্ল্যাটে থেকে যান। তবে টুকরো টুকরো করে দেহ কি আদৌ লোপাট করা হয়েছে? বাসিন্দারা বলেন, ঘটনার তদন্তে নেমেছেন গোয়েন্দারা। এর আগে গোপন খবর পেয়ে বুধবার ভোরে নিউটাউন থানার পুলিশ এলাকার সঞ্জীবা গার্ডেন্সের অভিজাত এই আবাসনে হাজির হয়। যে ফ্ল্যাটে আনোয়ারুল ছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে, সেই ফ্ল্যাটে রক্তের দাগ মিলেছে। চলে আসেন ফিঙ্গারপ্রিন্ট সংগ্রহ করার বিশেষজ্ঞ এবং রক্তের দাগ সংগ্রহের বিশেষজ্ঞরা।

অস্থায়ী ব্যারিকেড করে ঘিরে রাখা হয়েছে আবাসনের ওই নির্দিষ্ট ফ্ল্যাটটি। আবাসনে ঢোকা-বেরোনোর ক্ষেত্রেও কড়াকড়ি করা হয়েছে। সন্ধ্যা পর্যন্ত পুলিশ অবশ্য সরকারিভাবে দেহ উদ্ধার বা খুনের মোটিভ নিয়ে কিছু জানাতে রাজি হয়নি।

বুধবার দুপুরে ধানমন্ডির নিজ বাসায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, এমপি আনার হত্যার ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। আরও কয়েকজনকে ধরার চেষ্টায় আছি। তিনি বলেন, এমপি আনোয়ারুল আজিমকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। খুনের উদ্দেশ্য, কারা খুন করেছে, এসব জানতে ভারতের পুলিশ কাজ করছে। এ ঘটনায় দেশে আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তদন্ত চলছে। যারা এ খুনের সঙ্গে জড়িত, তাদের উদ্দেশ্য কী ছিল, আমরা পরে সেগুলো প্রকাশ করব।

রাজধানীর মেরুল বাড্ডা এলাকায় বৌদ্ধবিহার অনুষ্ঠানে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমরা খবর পেয়েছি ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ-সদস্য আনারের মরদেহ পাওয়া গেছে। বিষয়টি নিয়ে কলকাতা পুলিশ ও বাংলাদেশ পুলিশ একসঙ্গে কাজ করছে। সংসদ-সদস্য আনারের বিরুদ্ধে হুন্ডি, স্বর্ণ চোরাচালানসহ নানা অভিযোগ রয়েছে-এমন প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, এসব বিষয়ে এখন মন্তব্য করার সময় নয়। তবে এই অভিযোগগুলো আমরা সামনে নিয়ে তদন্ত করছি।

ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, তদন্তকারী কর্মকর্তারা কাজ করছেন। খুনের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাজনীতি, ব্যবসা-বাণিজ্য এবং আর্থিক লেনদেনসহ বিভিন্ন বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিবিড়ভাবে ভারতীয় পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। কয়েকজন আমাদের কাছে আছে। তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচ্ছি। তদন্তের স্বার্থে আমরা সবকিছু বলতে পারছি না।

সোনালী/ সা