ঢাকা | জুন ১৯, ২০২৪ - ১০:৫৭ পূর্বাহ্ন

রোনালদোর নেতৃত্বে পর্তুগালের ২০২৪ ইউরো দল ঘোষণা

  • আপডেট: Wednesday, May 22, 2024 - 8:26 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক: জার্মানির মাটিতে আগামী ১৫ জুন থেকে ইউরোপ শ্রেষ্ঠের লড়াই। ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২৪ আসরের জন্য দল ঘোষণা করেছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। কোচ রবার্তো মার্তিনেজ ৩৯ বছর বয়সী তারকা রোনালদোর নেতৃত্বে ২৬ সদস্যের দল ঘোষনা করেছে।

২০০৪ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর প্রথম ইউরো শেষ হয়েছিলো চোখের জলে যখন পর্তুগাল গ্রীসের কাছে ঘরের মাঠে ফাইনালে হেরে গিয়েছিলো। এর ১২বছর পর রোনালদো ঠিকই প্রতিশোধ নিয়েছিল ২০১৬তে ফ্রান্সকে হারিয়ে শিরোপা জয়ের মাধ্যমে। এর পর আরো একটা ইউরো গেছে কিন্তু ২০২৪ ইউরোতে অন্যতম ফেবারিট পর্তুগাল।

পর্তুগাল ইউরোতে ১০টি বাছাই ম্যাচ খেলেছে যার সবগুলোতে জিতেছে। একমাত্র দল হিসাবে অপরাজিত হয়ে ইউরো বাছাই পর্ব শেষ করেছে। সব মিলে তারা করেছে ৩৬গোল, যেখানে প্রতিপক্ষ মাত্র দুইবার তাদের জালে বল প্রবেশ করাতে সক্ষম হয় । এ রেকর্ডগুলো দলের শক্তির কথা জানান দেয়।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ইউরো খেলতে যাচ্ছেন শেষ বারের মতো। অনেকে বলছে, ২০২২ বিশ্বকাপে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে একটা সময়ে বসিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এবার তিনি আল নাসের হয়ে খেলছেন ঠিকই, কিন্তু মনে হয় না রোনালদোকে ছাড়া রবার্তো মার্তিনেজ তার দল নিয়ে ভাবছেন! বাছাই পর্বের ১০টা ম্যাচের মধ্যে ৯টাই রোনালদোকে দিয়ে শুরু করিয়ে সব ম্যাচ জয় অর্জন করেছে। তাই রোনালদোকে দিয়ে শুরু থেকে শুরু করার কথা। এখন পর্যন্ত সিআরসেভেন ইউরোতে সর্বোচ্চ ১৪ গোল এবং সর্বোচ্চ ২৫টি ম্যাচও খেলেছেন।

দলে জায়গা হয়েছে ৪১বছর বয়সী পেপের। তিনি ইউরোতে মাঠে নামার সময় নতুন একটা রেকর্ড গড়তে যাচ্ছেন, পর্তুগালের হয়ে সবচেয়ে বয়স্ক ফুটবলার হিসাবে ইউরোপের সর্বোচ্চ আসরের খেলার রেকর্ড রয়েছে তার। ইনজুরি থেকে ফেরা উলভারহ্যাম্পটনের ফরোয়ার্ড পেদ্রো নেতোকে স্কোয়াডে রাখা হয়েছে। চলতি মৌসুমে পোর্তোতে চমক দেখানো ফ্রান্সিসকো কন্সিয়াকাওকেও স্কোয়াডে রেখেছেন মার্টিনেজ। ২১ বছর বয়সী এই উইঙ্গার এবারই প্রথম ডাক পেয়েছেন।

২৬ সদস্যের স্কোয়াডে বাদ পড়াদের মধ্যে সবচেয়ে বড় নাম ম্যাথিয়াস নুনেসের। ম্যানচেস্টার সিটির এই মিডফিল্ডারকে স্কোয়াডে রাখেননি মার্টিনেজ। ইনজুরির কারণে ছিটকে গেছেন বায়ার্ন মিউনিখের ফুলব্যাক রাফায়েল গুরেরো। বাদ পড়াদের তালিকায় আরও আছেন স্পোর্টিং সিপির ফরোয়ার্ড পেদ্রো গন্সালভেস, উলভারহ্যাম্পটনের ডিফেন্ডার টটি গোমেস ও রোমার মিডফিল্ডার রেনাতো সানচেস।

ইউরোতে গ্রুপ এফএ পর্তুগাল ছাড়াও আছে চেক প্রজাতন্ত্র, তুরস্ক এবং জর্জিয়া। ইউরো মিশন শুরুর আগে ফিনল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া এবং আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে রোনালদোর পর্তুগাল।

পর্তুগালের ইউরো স্কোয়াড:

গোলরক্ষক: রুই প্যাট্রিসিও, দিয়েগো কস্তা, জোসে সা;

ডিফেন্ডার: জোয়াও কান্সেলো, দিয়েগো দালত, দানিলো পেরেরা, নুনো মেন্ডেস, পেপে, রুবেন দিয়াস, গনসালো ইনাসিও, নেলসন সেমেডো, আন্টোনিও সিলভা;

মিডফিল্ডার: ব্রুনো ফার্নান্দেস, জোয়াও নেভেস, রুবেন নেভেস, ভিতিনিয়া, ওতাভিও, জোয়াও পালিনহা;

ফরোয়ার্ড: ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো (অধিনায়ক), জোয়াও ফেলিক্স, রাফায়েল লিয়াও, গনসালো রামোস, দিয়েগো জোতা, ফ্রান্সিসকো কন্সিয়াকাও, পেদ্রো নেতো এবং বের্নার্দো সিলভা

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো শেষ ইউরো বলে দেওয়া যায় এরপর তিনি থামবেন না কিন্তু এটা বলে দেওয়া যাচ্ছে তিনি ইউরো খেলতে যাচ্ছেন শেষ বারের মতো। তার শুরুটা হয়েছিল ২০০৪ সালে এবং ২০১৬তে সর্বোচ্চ সাফল্য অর্জন করেন। এখন দেখার বিষয় পর্তুগাল কোনটা ফিরিয়ে আনবে ২০০৪ নাকি ২০১৬ । তবে, ২০১৬কে ফিরিয়ে আনতে চায় পর্তুগাল।

 

সোনালী/ সা