ঢাকা | জুন ১৯, ২০২৪ - ১০:১০ পূর্বাহ্ন

পেঁয়াজ চুরির অপবাদে শেকলে বেঁধে নির্যাতন

  • আপডেট: Sunday, May 19, 2024 - 11:07 am

অনলাইন ডেস্ক: লক্ষ্মীপুরে পেঁয়াজ চুরির অপবাদ দিয়ে আবদুল ওহাব (৪৮) নামে এক ব্যক্তিকে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে রশি দিয়ে হাত ও পায়ে তালা লাগানো শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

ভুক্তভোগী ওহাব নোয়াখালী জেলার চাটখিল উপজেলার দশঘরিয়া গ্রামের বাসিন্দা। তাকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় লোকজন জানান, পোদ্দারবাজারে ইউপি সদস্য আবদুর রহিমের ভাই আবুল কালামের মুদি দোকান থেকে শুক্রবার এক বস্তা পেঁয়াজ চুরি হয়। শনিবার সকালে আবদুল ওহাব পোদ্দারবাজারে এলে ব্যবসায়ী কালাম পেঁয়াজ চুরির অভিযোগ এনে তাকে আটক করেন। এরপর কালাম তার ভাই আবদুর রহিমকে খবর দেয়। পরে আবদুর রহিমসহ ১০-১৫ জন লোক এসে সড়কের পাশে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ওহাবকে রশি দিয়ে হাত ও শিকল দিয়ে পা বাঁধে। পায়ে জড়ানো শিকলে তালা লাগানো ছিল। এ সময় তাকে মারধর করা হয়। একপর্যায়ে খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ওহাবকে উদ্ধার করে স্বজনরা। তাকে বেঁধে রাখার একটি ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। ছবিতে টুপি মাথায় ওহাবকে বিমর্ষ দেখা গেছে।

থানা পুলিশ সূত্র জানায়, বিকালে ঘটনাটি জানাজানি হলে ইউপি সদস্য আবদুর রহিম ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা হারুনুর রশিদকে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে তাদের ছেড়ে দিলেও দুজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্তে পুলিশ কাজ করছেন।

ভুক্তভোগী আবদুল ওহাব সাংবাদিকদের বলেন, পার্শ্ববর্তী পোদ্দারবাজারে ঘুরতে আসলে আবুল কালাম পেঁয়াজ চুরির অপবাদ দিয়ে আটকে আমাকে মারধর করে। পরে তার ভাই রহিম মেম্বারসহ বিদ্যুতের খুঁটির সঙ্গে আমাকে বেঁধে নির্যাতন চালায়। আমাকে কিছু বলার সুযোগ দেওয়া হয়নি।

ইউপি সদস্য আবদুর রহিম বলেন, ওহাব পেঁয়াজ চুরি করেছে। এ জন্য তাকে মারধর করা হয়।

বশিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাহফুজুর রহমান বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। বাজারের ব্যবসায়ী ও ইউপি সদস্য বিষয়টি আমাকে জানায়নি। তবে কেউ আইন হাতে তুলে নেওয়া ঠিক হয়নি।

এ ব্যাপারে বশিকপুর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মাহবুবুর রহমান জানান, বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে বেঁধে এক ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগে দুজনকে আটক করা হয়েছে। তারা চন্দ্রগঞ্জ থানায় রয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত চলছে।

 

সোনালী/ সা