ঢাকা | জুন ১৯, ২০২৪ - ১০:৩০ পূর্বাহ্ন

নবজাতকের শরীর থেকে বেরিয়ে এলো দেড় ইঞ্চি সুঁই

  • আপডেট: Sunday, May 19, 2024 - 11:57 am

অনলাইন ডেস্ক: জন্মের প্রায় এক মাস পর নবজাতকের শরীর থেকে বেরিয়ে এলো দেড় ইঞ্চি মাপের আস্ত এক সুঁই। সন্তান জন্মের সময় চিকিৎসক অথবা নার্সের অবহেলা এমন দুর্ঘটনার জন্য দায়ী বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী পরিবারের।

ঢাকার আশুলিয়ার জামগড়ায় নারী ও শিশু হাসপাতালে গত ২০ এপ্রিল জন্ম নেয় শিশু আব্দুল্লাহ সাফওয়ান। পরদিন ২১ এপ্রিল বাড়িতে ফেরেন মা তুলি আক্তার। দুই থেকে দিন পর প্রচণ্ড জ্বর ওঠে শিশুটির। এক পর্যায়ে নবজাতকের কোমড়ের বাঁ পাশে চামড়ার নিচে ফোলা নজরে আসে পরিবারের সদস্যদের, যা ধীরে ধীরে আরও বড় আকার ধারণ করে।

পরিবারটির অভিযোগ, অবস্থা খারাপ দেখে গত ২ মে একই হাসপাতালে শিশুকে নিয়ে গেলেও পাননি সুচিকিৎসা। এভাবেই কেটে যায় আরও অন্তত দুই সপ্তাহ। অবস্থার কোনো উন্নতি না হওয়ায় পরিবারের সদস্যরা বাড়িতেই ক্ষতস্থান দেখতে গেলে বের হয়ে আসে আস্ত এক সুঁই।

নবজাতকের নানি হাসিনা বেগম বলেন, চাপ দেয়ার পর সুঁইয়ের মাথা বের হয়ে আসে। তারপর ইচ্ছা করে শিশুটিকে কষ্ট দিয়ে সুঁইটি বের করে আনি। এত বড় সুঁই দেখে অবাক হয়ে গেলাম।

সন্তানের প্রতি চিকিৎসক ও হাসপাতালটির এমন অবহেলায় ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা। শিশুটির মা বলেন, চিকিৎসকদের অবহেলাতেই এমনটা হয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে গেলে হাসপাতালটির ঊর্ধ্বতন কোনো কর্মকর্তার সাক্ষাৎ মেলেনি। তবে তথ্য কর্মকর্তা মো. হারুন অর রশিদের আশ্বাস তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার।

তিনি বলেন, ভেতরে সুঁই ঢুকে থেকে যাওয়াটা তো আশ্চর্যের বিষয়। এমনটা তো হওয়ার কথা না। যদি এমনটা হয়ে থাকে, তবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ১৯ এপ্রিল হাসপাতালের গাইনি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. আঞ্জুমান আরা রিতার তত্ত্বাবধানে ভর্তি হলে ২০ এপ্রিল ডা. মুস্তারি ফারহানার সহায়তায় সন্তান প্রসব করেন তুলি আক্তার।

সোনালী/ সা