ঢাকা | মে ২০, ২০২৪ - ৫:০৫ পূর্বাহ্ন

ফসলী জমিতে প্রভাবশালীর রাস্তা নির্মাণ চেষ্টা স্থানীয়দের ক্ষোভ

  • আপডেট: Tuesday, May 14, 2024 - 12:36 pm

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর বাগমারায় ফসলী জমিতে প্রভাবশালীর রাস্তা নির্মাণ অপচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের কামনগর গ্রামের।

লিখিত অভিযোগ স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কামনগর গ্রামের বটতলী মৌড় তেঁতুল তলা হতে কামনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তাটি শত বছরের পুরনো। দীর্ঘদিন থেকে রাস্তাটি দিয়ে গ্রামের মানুষ ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা চলাচল করে আসছে।

কিছুদিন পূর্বে কামনগর গ্রামের আতাউর রহমানের মা মারা গেলে তাকে কামনগর পুকুর পাড়ে রাস্তা ঘেঁষে কবর দেয়া হয়। তারপর থেকে ওই রাস্তায় সাধারণ মানুষকে চলচল করতে নানা ভাবে নিরুৎসাহিত করতেন আতাউর রহমানের পরিবার। এমনটি জানালেন, কামনগর স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসী কফিল উদ্দীনের পুত্র মফিজ উদ্দীন।

সূত্র জানায়, আতাউর রহমানের পুত্র হাফিজুর রহমান একজন সরকারি ঊর্ধ্বোতন কর্মকর্তা। তিনি পূর্বের রাস্তাটি বাদ রেখে নিজের বাড়ী পর্যন্ত বিকল্প রাস্তা বানাতে চান। এতে একই গ্রামের গোলাম রহমান, সোলাইমান খামারু, আজগর আলী সহ কয়েকজন কৃষকের ধানী জমি দিয়ে রাস্তা বানাতে হবে।  এ নিয়ে গ্রামে একাধিকবার দেন দরবার হয়েছে। সূত্র জানায়, তিনি একজন সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হওয়ার কারণে প্রভাব খাটিয়ে জোরপূর্বক বিকল্প রাস্তা নির্মাণের অপচেষ্টা করছেন।

অবসর প্রাপ্ত বিজিবি সদস্য আলাউদ্দীন জানান, বিকল্প রাস্তা নয়, পুকুরের পূর্ব পাশ দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করলে গ্রামবাসীর সবার উপকারে আসবে।  কোন ব্যক্তিকে নয়, গ্রামবাসীর সুযোগ সুবিধার দিকে নজর দিতে তিনি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ বিষয়ে আতাউর রহমানের পুত্র হাফিজুর রহমানের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, রাস্তার প্রকল্প পাশ হয়েছে। আগামীকাল কাজ শুরু হবে।

সোমবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে একাধিকবার কল করেও বাসুপাড়া ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎপর রহমানের মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া গেছে । ওই রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় কয়েকজন জানায়,  যে কোন সময় সেখানে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে।

প্রকল্লবাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাজিব আল রানাকে মুঠোফোনে কল দিলে তিনি বলেন, ওই রাস্তায় দুই লক্ষ টাকার প্রকল্প দেয়া হয়েছে। স্থানীয় জমিদাতাদের অসন্তোষ বা অসুধিা হলে রাস্তা নির্মাণ করা সম্ভব নয়। প্রতিকার চেয়ে ১২ ই মে, জেলা প্রশাসক রাজশাহী বরাবর কামনগর।

 

সোনালী/ সা