ঢাকা | মে ২৩, ২০২৪ - ২:০০ পূর্বাহ্ন

শেষ ম্যাচে হারের গ্লানি

  • আপডেট: Monday, May 13, 2024 - 11:54 am

অনলাইন ডেস্ক: ম্যাচের শেষদিকে সিনিয়র এক ক্রীড়া সাংবাদিক বললেন, আজ (রোববার) ম্যাচ রিপোর্টের শিরোনাম হতে পারে ‘বাংলাদেশকে জিম্বাবুয়ে বানিয়ে জিম্বাবুয়ের জয়!’ সিরিজের শুরু থেকেই জিম্বাবুয়ের পারফরম্যান্স নিয়ে চলেছে হাসিঠাট্টা। অথচ সেই দলটিই রোববার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের বিপক্ষে পঞ্চম ও শেষ টি ২০ ম্যাচে ১৫৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় জিতেছে নয় বল বাকি থাকতে আট উইকেটের বড় ব্যবধানে। সেভাবে লড়াই-ই করতে পারেনি নাজমুল হোসেনের দল।

টপ অর্ডারের চরম ব্যর্থতার পরও মিডল অর্ডারের কল্যাণে ছয় উইকেটে ১৫৭ রান করতে পারে বাংলাদেশ। জবাবে ব্রাইন বেনেট (৭০) ও অধিনায়ক সিকান্দার রাজার (৭২*) ঝড়ো ফিফটিতে সহজ জয়ে হোয়াইটওয়াশ এড়ায় জিম্বাবুয়ে। একটু এদিক ওদিক হলে সিরিজটাও জিততে পারত তারা। শেষ ম্যাচে হারলেও বাংলাদেশ সিরিজ জিতেছে ৪-১ ব্যবধানে। তবে পুরো সিরিজে বাংলাদেশ তেমন ভালো করতে পারেনি, জিম্বাবুয়ে আরও বেশি বাজে খেলেছে।

টানা চার জয়ের পরও বাংলাদেশ দলে স্বস্তি ছিল না। শেষ ম্যাচে পরিপূর্ণ পারফরম্যান্সের প্রত্যাশা ছিল প্রবল। এদিন বিশ্রামে রাখা হয় চোট পাওয়া তাসকিন আহমেদকে। একাদশে ফেরানো হয় মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মেহেদী হাসানকে। আগের ম্যাচে দুই ওপেনার ১০১ রানের জুটি গড়লেও বাকিরা কিছুই করতে পারেননি। কাল সেই টপ অর্ডারই চরম ব্যর্থ। ১৫ রানের মধ্যেই বাংলাদেশ হারায় তিন উইকেট। ওপেনার তানজিদ হাসান দুই ও সৌম্য সরকার ফেরেন সাত রানে।

ফর্মে থাকা তাওহিদ হৃদয়ও আউট হন এক রান করে। চতুর্থ উইকেটে ৬৯ রানের জুটিতে ধাক্কা সামাল দেন নাজমুল হোসেন ও মাহমুদউল্লাহ। অধিনায়ক ভালো ইনিংসের আভাস দিয়ে টানা দ্বিতীয় ছক্কার চেষ্টায় আউট ৩৬ করে। মাহমুদউল্লাহ পৌঁছান ফিফটিতে। ৪৪ বলে ছয় চার ও এক ছক্কায় ৫৪ রান করেন। সাকিব করতে পারেন ২১। শেষদিকে জাকের আলীর ১১ বলে ২৪* রানের ঝড়ো ইনিংসে ছয় উইকেটে ১৫৭ করতে পারে স্বাগতিকরা। দুটি করে উইকেট নেন ব্লেসিং মুজারাবানি ও ব্রাইন বেনেট।

জিম্বাবুয়ের হতশ্রী ব্যাটিং এদিন পালটে যায়। মারুমানিকে সাকিব ফেরান এক রানেই। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে বেনেট ও রাজার ৭৫ রানের জুটি। বেনেটকে ফেরান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। সমান পাঁচটি করে চার ও ছক্কায় ৪৯ বলে ৭০ করেন তিনি। পুরো সফরেই ব্যর্থ রাজাও শেষ ম্যাচে জ্বলে উঠলেন। এই ডান-হাতি ব্যাটার ৪৬ বলে চারটি ছক্কা ও ছয়টি চারে অপরাজিত ৭২ রান করে ম্যাচ জিতিয়ে ফেরেন।

অনেকেই মনে করছেন দেশের মাটিতে শেষ আন্তর্জাতিক টি ২০ খেলে ফেলেছেন সাকিব। অনেকের ধারণা এবারের টি ২০ বিশ্বকাপ শেষেই আন্তর্জাতিক টি ২০ থেকে অবসরে যাবেন সাকিব। অবশ্য মাঠে তেমন কিছুর আভাস মিলল না। সাকিব এদিন এক উইকেট নিয়ে ৭০০ আন্তর্জাতিক উইকেট থেকে মাত্র এক উইকেট দূরে থাকলেন। তার উইকেট এখন ৬৯৯টি।

আজই বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা করা হতে পারে। সেই দলটিই যাবে যুক্তরাষ্ট্রে। বিশ্বকাপের আগে স্বাগতিকদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি ২০ সিরিজ খেলবেন নাজমুলরা। ১৫ মে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল।

 

সোনালী/ সা