ঢাকা | মে ২০, ২০২৪ - ৫:৪৭ পূর্বাহ্ন

পহেলা বৈশাখে কেমন থাকবে আবহাওয়া

  • আপডেট: Saturday, April 13, 2024 - 1:04 pm

অনলাইন ডেস্ক: চৈত্রের শেষ দিন আজ। পুরাতন বছরকে বিদায় দিয়ে বাঙালি জাতি নতুন বছরকে বরণ করে নিতে প্রস্তুত। রাত পোহালেই বৈশাখের আগমন। কাঠফাটা গ্রীষ্মের আগমনী বার্তা দিচ্ছে আবহাওয়া।

গরম কমার কোনো সম্ভাবনা না থাকলেও আংশিক মেঘলা থাকতে পারে ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার আকাশ মেঘলা থাকতে পারে। এদিন উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৮-১৮ কিমি বেগে বাতাস বয়ে যেতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস। রোববার ( ১৪ এপ্রিল) ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার সকাল ৭ টা থেকে পরবর্তী ৬ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে এই তথ্য জানানো হয়।

পূর্বাভাসে বলা হয়, ১৪ এপ্রিল সকাল ৭ টা থেকে পরবর্তী ৬ ঘণ্টা ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকারর আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। একই সঙ্গে আংশিক মেঘলা থাকতে পারে।

উত্তরপশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৮-১৮ কিমি বেগে বাতাস বয়ে যেতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস। কমতে পারে দিনের তাপমাত্রা। শুক্রবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাঙামাটিতে, ৩৯ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা তীব্র তাপ প্রবাহ হিসেবে বিবেচিত।

এদিকে শুক্রবার ঢাকায় তাপমাত্রা ছিল ৩৬ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দিনের ব্যবধানে তাপমাত্রা বেড়েছে প্রায় ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই সময়ে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল দিনাজপুরে, ১৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চট্টগ্রাম বিভাগের বেশিরভাগ জেলার ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি তাপ প্রবাহ বয়ে চলছে।

শুক্রবার আবহাওয়ার পাঁচ দিনের পূর্বাভাসেও বলা হয়েছে, আগামী পাঁচ দিন পর বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। এ সময়ের শেষের দিকে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এর আগে তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে।

এদিকে বৈশাখের শুরুতেই গরম আরও বাড়বে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আর আগামী ১৪ এপ্রিল পয়লা বৈশাখ। আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, বৈশাখের শুরুতেই তীব্র তাপপ্রবাহ চলবে দেশব্যাপী।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, বাংলাদেশে প্রায় প্রতি বছরই এপ্রিল মাসে গড়ে সাধারণত দু–তিনটি মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ ও এক-দুটি তীব্র থেকে অতি তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যায়। এই মাসের শুরুতে দীর্ঘ মেয়াদি পূর্বাভাসেও তাই বলা হয়েছিল। মধ্য এপ্রিলের পর থেকে দেশের কয়েকটি অঞ্চলে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস পার হতে পারে, যা তীব্র থেকে অতি তীব্র তাপপ্রবাহ হিসেবে বিবেচিত। এই সময়ে তাপপ্রবাহের কারণে বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি থাকবে। এতে গরমে অস্বস্তি বাড়বে।

বছরের উষ্ণতম মাস হিসেবে এপ্রিল তার যথার্থতার প্রমাণ দিচ্ছে! বাংলায় এখন চৈত্রের শেষ প্রহর। দুই দিন পরেই বৈশাখের আগমন। কাঠফাটা গ্রীষ্মের আগমনী বার্তা দিচ্ছে আবহাওয়া। গরম কমার কোনো সম্ভাবনা নেই। আবহাওয়া দপ্তর বলছে, মাঝে সামান্য বৃষ্টি হলেও হতে পারে। তবে তাতে কমবে না সূর্যের তেজ।

 

সোনালী/ সা