ঢাকা | মে ২১, ২০২৪ - ৭:৩৬ অপরাহ্ন

বদলগাছীতে ব্যক্তির পক্ষ নিয়ে ঘর-বাড়ি ভাঙলো পুলিশ

  • আপডেট: Sunday, April 7, 2024 - 10:00 pm

বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি: বদলগাছীতে এক ব্যক্তির পক্ষ নিয়ে মারধর করে ঘর-বাড়ি ভাঙলেন ফাঁড়ির পুলিশ। সেই তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে সাংবাদিকদের হুমকি দিয়ে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেছেন পাহাড়পুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম।

জানা যায়, চাঁপাডাল গ্রমের মৃত. এফাজ উদ্দীন সরকারের ছেলে বিষু সরকার গং চাঁপাডাল মৌজার উত্তরা আলুর কোল্ড স্টোরের পিছনে জমিতে টিন ও ধারায়ের বেড়া দিয়ে ৫টি ঘর নির্মাণ করে বসবাস করছিলো।

সেই জায়গাটি দখল করার জন্য চাঁপাডাল গ্রামের প্রভাবশালী মৃত.ইদ্রস আলী সরকারের ছেলে আহসান হাবিব (শুকুর) এর পক্ষে প্রভাবিত হয়ে পাহাড়পুর ফাঁড়ির অফিসার ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলামের নির্দেশে পাহাড়পুর ফাঁড়ির এসআই মাহাবুব এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স দিয়ে ঐ অসহায় পরিবারগুলোকে মারধর করে ঘড়-বাড়ি ভেঙ্গে দেয়।

সেই সময় কয়েকজন ব্যক্তি ঐ দৃশ্যর ভিডিও করতে গেলে তাঁদের হুমকী দিয়ে মোবাইল বন্ধ করতে বলেন। পরে একজনকে আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে আসে। এবং বিষয়টি নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় শুরু হয়।

খবর পেয়ে সেই তথ্য সংগ্রহ করতে শনিবার দুপুর ৩ টায় উপজেলার পাহাড়পুর ফাঁড়িতে উপজেলার কয়েকজন সাংবাদিক গেলে ফাঁড়ী ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের দেখা মাত্রই তাদের উদ্দেশ্যে তেড়ে এসে বিভিন্ন অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে।

ওই কর্মকর্তার কাছে অসহায় পরিবারকে মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে, উচ্চ স্বরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন আপনারা কে? আপনাদের জবাব দিতে হবে কেন, পুলিশ ফাঁড়ি থেকে চলে যান, যা করার আছে করেন। না গেলে সমস্যা হবে বলেও হুমকি দেন ঐ পুলিশ কর্মকর্তা।

খোঁজ নিয়ে জানাযায়, পাহাড়পুর পুলিশ ফাঁড়ী ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম ১৫ কিলোমিটার দূরে জেলা শহর জয়পুরহাটে পরিবার নিয়ে বসবাস করেন। তিনি ঠিকমতো অফিস করেন না। আবার সেবা নিতে আসা অসহায় মানুষদের সাথে খুব খারাপ আচরণ করে। কেউ কেউ বলছেন টাকা হলে সেবা মিলে, টাকা না হলে সেবা মিলে না।

ভুক্তভোগী বিষু সরকার বলেন, ফাঁড়ি ইনচার্জের নির্দেশে এসআই মাহবুবসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আমাদের পরিবারকে মারধর করেছে এবং আমাদের ঘর-বাড়ি ভেঙ্গে দিয়েছে। আমরা আপনাদের মাধ্যমে এ ঘটনার বিচার চাই।

এ বিষয়ে পাহাড়পুর পুলিশ ফাঁড়ী ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম এর কাছে মুঠোফোনে সাংবাদিকদের লাঞ্চিত বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপনাদের সমস্যা আছে। আপনাদের বলবো একটা, লিখবেন আরেকটা, আপনারা এমনভাবে প্রশ্ন করেন, মেজাজ খারাপ হয়ে যায়। অসহায় পরিবারগুলোর ঘর-বাড়ি ভেঙ্গে দিয়ে আপনার পুলিশ কেন তাদেরকে মারধর করেছে বলে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, দুই পরিবার ঐ জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব করছিলো। আমরা আইন শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য একজন আটক করেছিলাম। পরে ছেড়ে দিয়েছি। আমরা কাউকে মারিনি।

বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাবুবুর রহমান বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। আমরা পাহাড়পুর ফাঁড়িতে যাবো বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সাংবাদিকদের লাঞ্চিত বিষয়ে তিনি বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মহাদেবপুর ও বদলগাছী)র’ সার্কেল জয়ব্রত পাল বলেন, বিষয় আপনার কাছেই জানলাম, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সোনালী/জেআর