ঢাকা | মে ২০, ২০২৪ - ১২:৩৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম

বাঘায় অগ্নিকাণ্ড কেড়ে নিল ৩৫ শ্রমিকের ঈদের আনন্দ

  • আপডেট: Saturday, April 6, 2024 - 9:00 pm

বাঘা প্রতিনিধি: বাঘায় অগ্নিকান্ডে ঈদের আনন্দ কেড়ে নিল প্লাস্টিকের গোডাউনের ৩৫ জন শ্রমিকের। উপজেলার তেপুকুরিয়া গ্রামে ইনছার আলীর আলিফ ট্রেডার্সে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের তেপুকুরিয়া গ্রামে ইনছার আলীর আলিফ ট্রেডার্সে কাজ করতনে ৩৫ জন শ্রমিক। এরমধ্যে ২৩ জন শ্রমিক ও ৮ জন ভ্যান চালক কাজ করে।

৩৩ শতাংশ জমির উপর প্লাস্টিকের কারখানা গড়ে তুলেন। কারখানায় ১ লাখ ক্যারেট, ১ লাখ বস্তা, ২৬ টন কাগজ, ৫০ টন ক্যারেটের কুচি, ২৫ হাজার কাটুন, ক্যারেট ভাঙা মেশিনসহ প্রায় ৩ কোটি টাকার মালামাল ছিল।

শুক্রবার বেলা ৩টার দিকে প্লাস্টিকের গোডাউনে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। মুহুর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রন করতে না পেরে বাঘা, চারঘাট, পুঠিয়া ও লালপুর সিভিল ডিফেন্স ও ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট তিন ঘন্টার আগুন নিয়ন্ত্রন করেন।

আগুন নেভাতে গিয়ে গোডাউন মালিক মুনছার আলী, ইনছার আলী, ইয়াজুল ইসলাম, শ্রমিক আয়ুব আলী, রেজাউল করিম, আমিরুল ইসলাম, সবুজ রানাসহ ৭ জন আহত হয়।

এ বিষয়ে শ্রমিক আয়ুব আলী বলেন, আমি মাসিক ১৬ হাজার টাকা বেতনে শ্রমিকের কাজ করি। এখানে কাজ করে বৃদ্ধ মা, স্ত্রী, সন্তানসহ ৬ সদস্যের পরিবার নিয়ে সংসার চালায়। সামনে ঈদ। ২৭ রমজানে মালিক শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দিবেন।

এরপর ঈদের বাজার করবো। তার আগেই গোডাউনে অগ্নিকান্ডে মালিকের সাথে আমরাও নি:স্ব হয়ে গেলাম। মালিক পক্ষ কী করবে জানিনা। তবে হতাশার মধ্যে রয়েছি।

ভ্যান চালক সুজন আলী, লিটন আলী, ইউনুস আলী বলেন, আমরা এখানে ভ্যান চালকের কাজ করি। ২৭ রজমানে এখান থেকে বেতন নিয়ে ঈদে স্ত্রী, সন্তানকে জামা কাপড় কিনে দিব। কিন্তু তা হলো না। মালিকও নিঃস্ব, আমরা ৩৫ জন শ্রমিকও নিঃস্ব হয়ে গেলাম।

বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তরিকুল ইসলাম বলেন, আগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি জেলা প্রশাসককে জানিয়েছে। সহযোগিতা আসলে তাৎক্ষনিকভাবে দেওয়া হবে।

সোনালী/জেআর