ঢাকা | এপ্রিল ২০, ২০২৪ - ৭:০৯ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে চাঁদা না পেয়ে সাবেক মেয়রের ভাতিজাকে কুপিয়ে জখম

  • আপডেট: Thursday, April 4, 2024 - 12:41 pm

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মহানগরীতে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা না দেয়ায় হাফিজুল হক নামে এক ডেভেলপার ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। হাফিজুল হক নগরীর রানীনগর এলাকার শহিদ আব্দুল হকের ছেলে এবং রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাদির ভাজিতা। গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় শহরের রানীনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত হাফিজুল হক বাদী হয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় নগরীর বোয়ালিয়া থানাধীন রানীনগর মোন্নাফের মোড় এলাকার আলিফ (৩০), একই থানার মো: ইউসুফ (৫৫), অনন্ত (৩৭), মিমসহ (২৬) অজ্ঞাত আরও পাঁচ থেকে ছয়জনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলার এজাহার ও স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, আহত হাফিজুল হক এইচ প্রোপার্টিজ নামে একটি ডেভেলপার প্রতিষ্ঠানের পরিচালক। তার প্রতিষ্ঠানের আওতায় নগরীর রানীনগর এলাকায় একটি ছয়তলা বিশিষ্ট ভবনের নির্মাণ কাজ চলছে। সেখানে গিয়ে অভিযুক্ত আলিফ তার সহযোগীদের নিয়ে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। কিন্তু ব্যবসায়ী হাফিজুল হক তাদের চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এসময় নির্ধারিত চাঁদা না দিলে কাজ বন্ধ করে দিয়ে হাফিজুলকে হত্যার হুমকি দেয় আলিফ ও তার সহযোগীরা।

এর জের ধরে গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় রানীনগর এলাকায় আলিফ ও তার সহযোগীরা হাফিজুলের প্রাতিষ্ঠানিক সাইডে গিয়ে নির্মাণ কাজে বাধা দেন এবং সেখানকার নির্মাণ শ্রমিকদের মারধর শুরু করেন। খবর পেয়ে ব্যবসায়ী হাফিজুল সেখানে গেলে তার কাছে আবারও পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে অভিযুক্তরা। পরে চাঁদা দিতে না চাওয়ায় অভিযুক্তরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হাফিজুলের ওপর হামলা করে।

একইসঙ্গে তারা নির্মাণকাজে ব্যবহিত বিভিন্ন মেশিনেও ভাঙচুর চালায়। এসবের এক পর্যায়ে ধারালো রাম দা দিয়ে হাফিজুলের মাথায় আঘাত করে আলিফের এক সহযোগী। এসময় গুরুতর রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন হাফিজুল হক। আহত অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়।

এ বিষয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর বলেন, এ ধরনের একটি অভিযোগ পেয়েছেন। তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সোনালী/ সা