ঢাকা | এপ্রিল ২০, ২০২৪ - ১১:৩২ অপরাহ্ন

দুর্নীতি করে ভোটের খরচ তোলার ঘোষণা এমপির

  • আপডেট: Friday, March 29, 2024 - 12:14 pm

নাটোর প্রতিনিধি: স্বাধীনতা দিবসের এক অনুষ্ঠানে নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কালাম আজাদ প্রকাশ্যে দুর্নীতি করার ঘোষণা দিয়েছেন। এমন একটি ভিডিও ক্লিপ সমাজমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে এবং ভাইরাল হয়েছে। বক্তব্যে মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমার পাঁচটা বছরের (২০১৪-২০১৮) বেতনভাতার টাকা ছাড়া আমার কোনো সম্পদ ছিল না। আগামীতেও থাকবে না। এবার  (দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে) ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা খরচ হয়েছে। সেই টাকা আমি তুলব। যেভাবেই হোক তুলবই। এতটুটু অনিয়ম আমি করবই। এটুকু অন্যায় করব, আর করব না।’

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) লালপুর উপজেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য এসব কথা বলেন। গত রাতে এ বক্তব্যের একটি ভিডিও ক্লিপ বাংলাদেশ প্রতিদিনের হাতে এসেছে। সংসদ সদস্যের প্রকাশ্যে এমন বক্তব্য আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে জেলাজুড়ে।

বক্তব্যে আবুল কালাম আজাদ আরও বলেন, ‘২৫ লাখ টাকা ব্যাংকে জমা দিয়েছি। ট্যাক্স-ফ্রি গাড়ি কিনেছি ২৭ লাখ টাকা দিয়ে। ইচ্ছা করলে আমি ১ কোটি টাকা দিয়ে গাড়ি কিনতে পারতাম। কিন্তু আমার যেহেতু টাকা নাই, আমি ২৭ লাখ টাকা দিয়ে কিনেছিলাম। এবার আমি কিনব, ওই টাকা দিয়ে কিনব। ওই টাকা আমি তুলে নেব। খালি এই ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা তুলব।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতার বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার কোনো মন্তব্য নেই। উনার বক্তব্যে (সংসদ সদস্য) উনি বলেছেন, এটাতে আমার কোনো কথা নাই। কীভাবে সংসদ সদস্য সবার সামনে এমন কথা বললেন, তা আমি জানি না। এমন কথায় আমি নিজেও বিব্রত হয়েছি।’

বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে সংসদ সদস্য মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমার বক্তব্যে এটা বোঝাতে চেয়েছি যে অনেকেই এ রকম করে। আমার বক্তব্য বিকৃত করে প্রচার করা হচ্ছে। এটা এমন কিছু না। বক্তব্য দেওয়ার সময় মজা করে আমি কথাটা বলেছি। ওটা সিরিয়াস কোনো কথা নয়।’

এ বিষয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি, নাটোর জেলা সভাপতি আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘সরকারি অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যে একজন সংসদ সদস্যের এমন বক্তব্য খুবই দুর্ভাগ্যজনক। তাঁর (সংসদ সদস্যের) এমন বক্তব্যে তাঁর সহকারী এবং দলীয় নেতা-কর্মীরা দুর্নীতিতে উৎসাহিত হবেন। এটা একদিকে যেমন পরিষ্কারভাবে শপথের লঙ্ঘন অন্যদিকে নির্বাচনি বিধিরও লঙ্ঘন।

নির্বাচনি বিধি অনুযায়ী একজন সংসদ সদস্য ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা ব্যয় করতে পারেন না।’ সংসদ সদস্যের কাছে গঠনমূলক বক্তব্যেরও প্রত্যাশা করেন তিনি।

 

সোনালী/ সা