ঢাকা | এপ্রিল ১৯, ২০২৪ - ৭:৪৬ পূর্বাহ্ন

ড. শামসুজ্জোহার আত্মত্যাগ মহান মুক্তিযুদ্ধের সূচনা ঘটিয়েছিল: বাদশা

  • আপডেট: Sunday, February 18, 2024 - 7:00 pm

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের শিক্ষক ও তৎকালীন প্রক্টর অধ্যাপক ড. শামসুজ্জোহার আত্মত্যাগ মহান মুক্তিযুদ্ধের সূচনা ঘটিয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা রাজশাহী-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ফজলে হোসনে বাদশা।

রোববার বেলা ১১টায় দেশের প্রথম শহিদ বুদ্ধিজীবী অধ্যাপক ড. শামসুজ্জোহার ৫৫তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (রাকসু) সাবেক ভিপি ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, সংসদে দিনটিকে জাতীয় শিক্ষক দিবস হিসেবে ঘোষণা করার দাবি তুলেছিলামএ কিন্তু গৃহীত হয়নি। ড. শামসুজ্জোহার আত্মত্যাগ মহান মুক্তিযুদ্ধের সূচনা ঘটিয়েছিল। ইতিহাসের পাতায় ছাত্রদের জন্য শিক্ষকের প্রাণ উৎসর্গের ঘটনা বিরল। দেশপ্রেমের এমন মহান চেতনা সর্বত্র ছড়িয়ে দেয়ার জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে উদ্যোগ নেয়া উচিত।

দেশের অন্যতম জাতীয় রাজনীতিক ফজলে হোসেন বাদশা আরও বলেন, ড. শামসুজ্জোহার রক্তের দাগ ও ছাত্রদের প্রতি কর্তব্যবোধের যে অনন্য দৃষ্টান্ত, তা উজ্জীবিত রাখতে রাষ্ট্রের প্রতি আমরা অসংখ্যবার আহ্বান জানিয়ে আসছি। কিন্তু দুঃখের বিষয়, শহিদ ড. জোহার আত্মত্যাগের অর্ধশত বছর অতিবাহিত হতে চললেও এখন পর্যন্ত এ দিবসটিকে জাতীয়ভাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়নি। ড. জোহার রক্তের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ১৮ ফেব্রুয়ারিকে ‘জাতীয় শিক্ষক দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা উচিত।

শ্রদ্ধা নিবেদনকালে উপস্থিত ছিলেন মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ প্রামানিক দেবু, সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল মতিন, মহানগর সদস্য আলমগীর হোসেন আলম, শাহিনুর বেগম, বোয়ালিয়া পশ্চিমের সাধারণ সম্পাদক শাহিন শেখ, রাবি শাখা জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আকছারুজ্জামান সুমন, সাধারণ সম্পাদক বিমান চক্রবর্তী, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি নান্টু, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি ফায়সাল আহমেদ রাতুল, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের পার্টির নেতা সারোওয়ার জাহান রনি, কাটাখালী পৌরসভার সভাপতি মনজুর হাসান প্রমুখ।

সোনালী/জগদীশ রবিদাস