ঢাকা | জুলাই ১৭, ২০২৪ - ১:৩৩ পূর্বাহ্ন

১৪ দলের আসন বন্টন দু-এক দিনের মধ্যেই

  • আপডেট: Monday, December 11, 2023 - 12:00 am

সোনালী ডেস্ক: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের আসন বন্টন এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে দু-একদিনের মধ্যেই আসন বন্টনের বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন জোটের নেতারা।

রোববার রাতে সংসদ ভবনে এমপি হোস্টেলে আসন ভাগাভাগি নিয়ে বৈঠকে বসে জোটের শরিক দলগুলো। ১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন আমুর নেতৃত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাহাঙ্গীর কবির নানক, মাহবুব উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, মির্জা আজম, হাসানুল হক ইনু, শিরীন আক্তার, দিলীপ বড়ুয়া, নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, শাহাদাত হোসেন, শেখ শহীদুল ইসলাম, এস কে সিকদার, আনোয়ার হোসেন মঞ্জু প্রমুখ।

বৈঠক শেষে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু সাংবাদিকদের বলেন, ১৪ দলীয় জোট নৌকা প্রতীক নিয়ে একসাথে নির্বাচন করবে। তবে চূড়ান্ত আসন বণ্টন এখনও সম্ভব হয়নি। দুই একদিনের মধ্যেই এটি চুড়ান্ত হয়ে যাবে। তিনি বলেন, আসন ভাগাভাগির হওয়ার পর, সেইসব আসনের বাইরে প্রত্যেক দলের প্রার্থীরা নিজ দলের প্রতীক নিয়ে স্বাধীনভাবে নির্বাচন করতে পারবে।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, আসন ভাগাভাগি নিয়ে আরেকটু সময় লাগবে। জোটের শরিক তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী বলেন, কোন আসন কাকে দেয়া হবে সেটা এখনও ঠিক হয়নি। যে তালিকা দেয়া হয়েছিলো সেটা ছোট করা হয়েছে। কোথায়, কে জিতবে সেটা গুরুত্ব দেয়া হবে। আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে সিদ্ধান্ত আসবে বলেও জানান তিনি।

একাদশ জাতীয় সংসদে বর্তমানে আওয়ামী লীগের শরিক ১৪ দলীয় জোটের আট জন সংসদ সদস্য রয়েছেন। এর আগে চার ডিসেম্বর গণভবনে সন্ধ্যা ছয়টা থেকে রাত পৌনে ১০টা পর্যন্ত ১৪ দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। বৈঠকে জোটগত নির্বাচনের সিদ্ধান্ত হলেও শরিকদের সঙ্গে আসন বণ্টন বা সমঝোতা হয়নি।

বিষয়টি দেখতে জোটের মুখপাত্র ও সমন্বয়ক আমির হোসেন আমুর নেতৃত্বে একটি কমিটি করে দেয়া হয়। গত ৫ ডিসেম্বর রাতে আমুর বাসায় বৈঠক করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন ও জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বে দল দুটির সাবেক ও বর্তমান সংসদ সদস্যরা।

মুক্তিযুদ্ধ, গণতন্ত্র এবং অসাম্প্রদায়িক আদর্শের ভিত্তিতে ২০০৪ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গঠিত হয় ১৪ দলীয় জোট। মূলত ওই বছরের ২১ আগস্ট শেখ হাসিনার সমাবেশে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা চালিয়ে অনেক নেতাকর্মীকে হত্যার পর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের গণতান্ত্রিক প্রগতিশীল দলগুলোকে নিয়ে ২৩ দফা ঘোষণা দিয়ে ১৪ দলীয় জোটের যাত্রা শুরু হয়।

তফসিল অনুযায়ী, আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট হবে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ ছিল ৩০ নভেম্বর। ১ ডিসেম্বর থেকে বাছাই শুরু হয়, শেষ হয় ৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যায়। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ও শুনানি ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এবং ১৭ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ১৮ ডিসেম্বর।

সোনালী/জেআর