ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২৪ - ১০:১১ অপরাহ্ন

দুর্গাপুরে সরানো হয়নি সম্ভাব্য প্রার্থীদের ব্যানার-পোস্টার

  • আপডেট: Thursday, November 23, 2023 - 5:10 pm

দুর্গাপুর প্রতিনিধি: আসন্ন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীর পক্ষ থেকে রাজশাহী-৫ (দুর্গাপুর-পুঠিয়া) আসনের শুভেচ্ছা ও দোয়া চেয়ে টানানো ব্যানার- ফেস্টুন-পোস্টার ও নির্মিত তোরণ সরিয়ে নিতে মাইকিং করা হয়েছে। এরপরও সরানো হয়নি আসনের প্রায় ১৭জন সম্ভাব্য প্রার্থীর ব্যানার-ফেস্টুন-পোস্টার।

উপজেলা পরিষদ গেটসহ মোড়ে মোড়ে শোভা পাচ্ছে এসব ব্যানার-ফেস্টুন- পোস্টার। নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল করিমের উদ্যোগে উপজেলা জুড়ে মাইকিংও করা হয়।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান বলেন, জাতীয় নির্বাচনের প্রচার শুরুর আগেই যেসব পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন লাগানো হয়েছে তা তুলে ফেলতে বলেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ সংক্রান্ত একটি চিঠি আমরা পেয়েছি। সে নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতেই সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার পরও উপজেলা পরিষদের ভিতরে ও গেটে, পৌরসভার সামনে সাঁটানো রয়েছে সম্ভাব্য বিভিন্ন প্রাথীর ব্যানার-ফেস্টুন-পোস্টার। এছাড়া বাজারের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে ও সাতটি ইউনিয়ন পরিষদের সামনে এবং উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়কে প্রার্থীদের পোস্টারের ছড়াছড়ি। আর এসব ব্যানার ফেস্টুনের কারণে রাস্তার এক পাশ থেকে অন্য পাশে দেখা যায় না।

আসন্ন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের রাজশাহীর-৫ (দুর্গাপুর-পুঠিয়া) আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী তানজিমা শারমিন মুনি বলেন, শুনেছি আইন অনুযায়ী এখন সম্ভাব্য প্রার্থীদের ব্যানার ফেস্টুন পোস্টার অপসারণ করতে হবে। কিন্তু এখনো আমি এ ধরনের কোন নিদের্শনা পাইনি। নিদের্শনা পেলে দুই উপজেলায় বিভিন্ন জায়গায় সাঁটানো ব্যানার পোস্টার ফেস্টুন সরিয়ে ফেলা হবে।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা আব্দুল করিম বলেন, ব্যানার-ফেস্টুন-পোস্টার অপসারণে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়েছে। সব প্রার্থীদের এ বিষয়ে বলে দেয়া হয়েছে। তাদের তিন দিনের সময় বেধে দেয়া হয়েছে। প্রার্থীরা নিজেরাই এটা অপসারণ করে নিবেন। না নিলে সেই প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সোনালী/জেআর