ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৬, ২০২৪ - ২:৫৬ পূর্বাহ্ন

কাটাখালিতে অস্ত্র ও মাদক দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ

  • আপডেট: Wednesday, November 15, 2023 - 8:49 pm

স্টাফ রিপোর্টার: কাটাখালির চরশ্যামপুর পশ্চিমপাড়া এলাকার নয়ন আলী নামে এক ব্যক্তিকে অস্ত্র মাদক দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে নয়ন আলীর পরিবারের পক্ষে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত চেয়ে রাজশাহী র‌্যাব-৫ ও মহানগর পুলিশ কমিশনার বরাবর লিখিত আবেদন করা হয়েছে।

বুধবার রাজশাহীর চরশ্যামপুর পশ্চিমপাড়া এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে ডাবলু শেখ তার ভাইয়ের পক্ষে এ আবেদন করেছেন। লিখিত আবেদনে ডাবলু শেখ উল্লেখ করেছেন, গত ১১ নভেম্বর দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় রাজশাহী র‌্যাব-৫ মোল্লাপাড়া ক্যাম্পের সদস্যরা তাদের বাড়িতে ঢুকে বাড়ি তল্লাশির কথা জানায়।

এসময় তারা র‌্যাবকে বাড়ি তল্লাশির অনুমতি দেয়। র‌্যাব তাদের বাড়ির ছাদে তল্লাশি করে দুটি ওয়ান শুটারগান-গুলি ও নয়ন আলীর বেড রুম থেকে দুই প্যাকেট হেরোইন উদ্ধার করে। একই সাথে নয়ন আলীকে (৪২) আটক করে র‌্যাব।

আবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, নয়ন আলীকে আটক করে নিয়ে যাওয়ার পর তার বিরুদ্ধে কাটাখালি থানায় একটি মামলা দেয়া হয়। নয়ন আলীর পরিবার ধারণা করছে প্রতিপক্ষরা তাদের বাড়িতে অস্ত্র-গুলি ও হেরোইন রেখে র‌্যাবকে সংবাদ দিয়ে পরিকল্পিতভাবে তাকে ফাঁসিয়েছে। কারণ ওই এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আক্কাস আলীর সাথে নয়ন আলী ও আয়ুব আলীর দ্বন্দ্ব ছিল।

গত এক বছর আগে মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় অপর ভাই আয়ুব আলীর সাথে আক্কাস আলীর দ্বন্দ্ব শুরু হয়। সে সময় আক্কাস আলী তাদের পরিবারকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। যদিও মাদক ব্যবসায়ী আক্কাস আলী জেল হাজতে আছে। কিন্তু জেল হাজতে থেকেই তার লোকজন দিয়ে নয়ন আলীর পরিবারের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র করে আসছে। সেই ষড়যন্ত্রের জেরে নয়ন আলীকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে। নয়ন আলী নদীতে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করেন। বিষয়টি পুনরায় তদন্ত করা হলে আসল সত্যতা বেরিয়ে আসবে বলেও র‌্যাব পুলিশের কাছে দাবি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে আটক নয়ন আলীর ভাই ডাবলু শেখ জানান, আমার বড় ভাই নয়ন আলী ৫ ওয়াক্ত নামাজের সাথে তাহাজ্জতের নামাজ পড়েন। ঘটনার দিন র‌্যাব তাদের বাড়িতে প্রবেশ করার সময় তিনি তাহাজ্জতের নামাজ পড়ছিলেন। পরিকল্পিতভাবে অস্ত্র ও মাদক রেখে তার ভাইকে ফাঁসানো হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। একই সাথে তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তও দাবি করেন।
পবা হরিয়ন ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের সদস্য শহিদুল ইসলাম বলেন, নয়ন একজন সাদাসিধে মানুষ। তিনি অস্ত্র ও মাদকের সাথে জড়িত থাকতে পারে না। তাকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে নগরীর কাটাখালি থানার এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সেলিম রেজা জানান, মামলাটির তদন্ত শুরু হয়েছে। আমরা মামলাটি গুরুত্ব সহকারে দেখবো। তাকে যদি কেউ অস্ত্র মাদক দিয়ে ফাঁসিয়ে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অভিযোগ পাওয়ার বিষয়ে রাজশাহী র‌্যাব-৫ এর মিডিয়া ইউং ইন্সপেক্টর রাশেদ খান আবেদনটি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখবো।

সোনালী/জেআর