ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৬, ২০২৪ - ১:১২ পূর্বাহ্ন

বগুড়ায় বিএনপি নেতার অডিও ফাঁস

  • আপডেট: Friday, November 10, 2023 - 12:06 am

অনলাইন ডেস্ক: অবরোধে দলীয় নেতাকর্মীদের চোরাগুপ্ত হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন বগুড়া জেলার সহ-সভাপতি ও শিবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি মীর শাহে আলম।

গত সোমবার বিএনপি-জামায়াতের ডাকা দ্বিতীয় দফা অবরোধের দ্বিতীয় দিন শিবগঞ্জ বিএনপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে অডিও বার্তায় এ নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশনা না মানলে দলীয় ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেন এ নেতা। বৃহস্পতিবার এ অডিও বার্তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

মীর শাহে আলম নিজ দলের ভেতরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার আস্থাভাজন হিসেবেও পরিচিত।

শিবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে দেওয়া মীর শাহে আলমের চার মিনিটের অডিও বার্তা গণমাধ্যমের হাতে এসেছে। সেখানে তিনি বলেন, ‘দলের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। যে যার অবস্থান থেকে যতটুকু পারি অথবা অধীনস্থ নেতাকর্মীদের নিয়ে মহাসড়কের পাশাপাশি ইউনিয়ন ও বন্দরগুলোতে পিকেটিং, মিছিল ও প্রতিবন্ধকতা তৈরি করুন। এইসব করতে না পারলে কিভাবে নিজের মুখ দেখাবেন ও মিছিল, মিটিং এ বড়বড় কথা বলবেন? সাধারণ মানুষ ও নেতাকর্মীদের সামনে মুখ দেখাতে পারবেন না। আপনাদের আত্মগোপনে থেকে এই রকম ভূমিকার জন্য শিবগঞ্জের সুসংগঠিত বিএনপির প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। আপনাদের ব্যর্থতার দায় আমার ওপরে আসছে। আমি কিভাবে কাজ করছি বা করিয়ে নিচ্ছি যারা মহাসড়কের দায়িত্বে আছেন তারা জানেন।

আবারও অনুরোধ করে বলছি, অবরোধে দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করুন। গত ২৮ অক্টোবরের পর অনেক শীর্ষ নেতা যেভাবে গা ঢাকা দিয়েছেন। আপনারা দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে অনেক মামলা, হামলার শিকার হয়ে আন্দোলন করে যাচ্ছেন। এই সময় কারও বিরুদ্ধে যেন সাংগঠনিকভাবে বহিষ্কারের ব্যবস্থা না নিতে হয়। এই শান্তিপূর্ণ অবরোধ সফল করার জন্য সড়কে সবাইকে ভূমিকা রাখার অনুরোধ জানান তিনি।’

এরপরেই বৃহস্পতিবার সকালে তৃতীয় দফার অবরোধের প্রথম দিনে শিবগঞ্জের কিচকে উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা কাঠে আগুন জ্বালিয়ে জয়পুরহাট-বগুড়া আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করেন। দীর্ঘসময় তারা সেখানে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক এক নেতা বলেন, শাহে আলম নিজেই মাঠে না থেকে গায়েবিভাবে নেতাকর্মীদের আন্দোলনের নির্দেশ দিচ্ছেন। তার এই অডিও বার্তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে। উপজেলা কমিটিতে যাদের নেতা বানানো হয়েছে সবাই তার হাতের পুতুল। এরকম গায়েবি নির্দেশনা দিয়ে সরকার পতনের স্বপ্ন দেখা হাস্যকর।

মীর শাহে আলমের পক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক নেতা আব্দুল্লাহ জোবায়ের লিখেছেন, মীর শাহে আলম নেতাকর্মীদের উদ্বুদ্ধ করতে হোয়াটসঅ্যাপে বার্তা পাঠিয়েছেন। সংগঠনের জন্য সুস্পষ্ট এই বার্তাকে অনেকেই ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছেন। তবে আব্দুল্লাহ জোবায়ের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।

শিবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি মীর শাহে আলম মোবাইল ফোনে বলেন, অবরোধে মিছিল, মিটিং করতে বলা গণতান্ত্রিক অধিকার। পিকেটিং বলতে সাধারণ মানুষকে শান্তিপূর্ণ অবরোধ কর্মসূচিতে উদ্বুদ্ধ করার আহ্বান জানানো হয়েছে। অডিওতে কোথাও ধ্বংসাত্মক বার্তা দেওয়া হয়নি বলে দাবি করেন এই নেতা।

দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে দেওয়া বার্তা কিভাবে বাহিরে ছড়িয়ে গেল জানতে চাইলে তিনি বলেন, সংগঠন অনেক মানুষ করেন। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের সঙ্গে লিয়াজু করে দলকে বিপদে ফেলানোর কিছু মানুষও আছেন।

তিনি আরও বলেন, পুলিশ বাড়ি বাড়ি গিয়ে নেতাকর্মীদের হয়রানি ও গ্রেপ্তার চালাচ্ছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলায় জেলে পাঠানো হচ্ছে।

শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তা বলেন, বিএনপি নেতা স্পষ্টভাবে অডিও বার্তায় চোরাগুপ্ত হামলার নির্দেশনা দিয়েছেন। আমাদের নেতাকর্মীরা সাধারণ মানুষের জানমালের নিরাপত্তায় বিভিন্ন মোড়ে অবস্থান নিয়েছে।

শিবগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি আব্দুর রউফ বলেন, বিএনপি নেতা শাহে আলমের অবরোধে পিকেটিংয়ের নির্দেশনা দেওয়ার অডিও বার্তা নজরে এসেছে। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। উনি গা ঢাকা দিয়েছেন।

সোনালী/জেআর