ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২৪ - ৭:৪৮ পূর্বাহ্ন

বিএনপির অবরোধ ঠেকাতে মাঠে থাকবে যুবমৈত্রী

  • আপডেট: Saturday, November 4, 2023 - 7:00 pm

বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ থেকে নেতারা

স্টাফ রিপোর্টার: আগামীকাল রোববার থেকে বিএনপির ডাকা অবরোধ ঠেকাতে রাজশাহীর রাজপথে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন মহানগর যুবমৈত্রীর নেতারা।

আজ শনিবার বিকালে শহরের লক্ষ্মীপুর এলাকায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে তারা এ ঘোষণা দেন। যুবমৈত্রীর রাজপাড়া থানা কমিটি এই কর্মসূচির আয়োজন করে।

এর আগে নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড় থেকে একটি মিছিল বের করা হয়। ওই এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মিছিলটি লক্ষ্মীপুর মোড়ে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের সামনে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, “বিএনপি-জামায়াত বাংলাদেশের জনগণকে জিম্মি করার জন্য যে অবরোধ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে; সেটি প্রতিহত করার জন্য আমরা সার্বক্ষণিক রাজপথে অবস্থান করবো।”

তারা বলেন, “বাংলাদেশ বিভিন্ন দুর্যোগ মহামারীর মধ্য দিয়ে গেছে। এসবের কারণে জনগণ অসহায় হয়ে পড়েছিল। ঐ দিনগুলোতে আমরা জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছি। এমনকি নিজের জীবন বাজি রেখে জনকল্যাণে মানুষের সেবার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছি। আমরা প্রশ্ন রাখতে চাই, বিএনপি জামায়াত নামক রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা সেদিন কোথায় ছিলেন। বাংলাদেশের মানুষের জন্য তাদের যদি এতই দরদ; তাহলে সেদিন তারা নিজের জীবন পকেটে নিয়ে কেন বাড়িতে লুকিয়ে ছিলেন।”

নেতারা বলেন, “তাদের এমন স্বার্থের রাজনীতি জনগণ বুঝে ফেলেছে। তাই এসব হরতাল-অবরোধ জনগণ আর মানে না। তবুও তারা কোনরকম অগ্নি-সন্ত্রাস ও নাশকতা করার চেষ্টা করলে সঙ্গে-সঙ্গে কড়া জবাব দেয়া হবে।”

জনগণ উন্নয়নে বিশ্বাস করে; অগ্নি সন্ত্রাসের নয়, মন্তব্য করে যুবমৈত্রীর নেতারা বলেন, “বিএনপি-জামায়াত জোট যখন ক্ষমতায় ছিল তখন তারা রাজশাহীসহ দেশের মানুষকে কিছুই দিতে পারেনি। রেশম কারখানা বন্ধ হয়ে গেছিল। বিমানবন্দরে গরু চরতো। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর দিকে তাকানো যেত না। রাস্তাঘাট অচল ছিল। আমাদের নেতা জননেতা ফজলে হোসেন বাদশা এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর রাজশাহী উন্নয়নের গতিশীলতায় এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে চাই।”

তারা বলেন, “নির্বাচন নিয়ে সংবিধানে যা আছে সেই অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনকে যদি কেউ বানচাল করার অপচেষ্টা চালায় তবে বাংলাদেশের জনগণ ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের প্রতিহত করবে।”

দেশকে পেছনে নেয়ার গভীর ষড়যন্ত্র চলছে উল্লেখ করে যুবমৈত্রীর নেতারা আরও বলেন, সাম্রাজ্যবাদী অপশক্তি আমেরিকার মদদে বিএনপি-জামায়াত বাংলাদেশকে পেছনে ফেলার যে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে তা কখনোই বাস্তবায়িত হতে দেয়া হবে না। কারণ বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় এলে বাংলাদেশের পরিবেশ কি হয়, তা এ দেশের জনগণ জানে এবং বোঝে। তারা ক্ষমতায় এলে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি হয়। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কায়েম হয়। দুর্নীতিতে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়। সুতরাং বাংলাদেশের মানুষ কখনোই তাদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না।”

যুবমৈত্রীর নেতারা বলেন, “আমরাও দীর্ঘদিন ধরে জনগণের কল্যাণে রাজনীতি করছি। নিজেদের দাবি আদায়ের জন্য কখনোই আমরা মানুষকে হত্যা করিনি। রেললাইন উপড়ে ফেলিনি। বাসে আগুন দেইনি। পুলিশকেও হত্যা করিনি। তারা এসব করে কারণ তারা সন্ত্রাসী সংগঠন। বাংলাদেশের মানুষ আর পেছনে ফিরে তাকাতে চায় না। বাংলাদেশের মানুষ শান্তি চায়। সেই শান্তি বজায় রাখার জন্য যা-যা করণীয় যুবমৈত্রীর নেতারা সেটি করবে।”

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন রাজপাড়া থানা যুবমৈত্রীর আহ্বায়ক শাহ আলম। বক্তব্য রাখেন, মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ প্রামাণিক দেবু, মহানগর যুবমৈত্রীর সভাপতি ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি, মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্য মোশারফ হোসেন, মহানগর যুবমৈত্রীর সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাইমিনুল হক রানা প্রমুখ।

সমাবেশ পরিচালনা করেন নিউ গভমেন্ট ডিগ্রী কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি ও মহানগর যুবমৈত্রীর সহ-সভাপতি রায়হান হালিম।

এ সময় মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য আব্দুল মতিন, যুবনেতা আরিফুল ইসলাম আরিফ, আলামিন সরকার, বাঁধন ইসলাম, সুজন, ইস্তো পারভিন, খোরশেদ আলম, তারেক হোসেন, কাওসার আহমেদসহ রাজপাড়া থানা যুবমৈত্রীর সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সোনালী/জগদীশ রবিদাস