ঢাকা | জুলাই ১৪, ২০২৪ - ১১:৪৭ অপরাহ্ন

সন্ত্রাস-ষড়যন্ত্র করলে হাত গুঁড়িয়ে দেব, বললেন কাদের

  • আপডেট: Tuesday, September 26, 2023 - 12:10 am

অনলাইন ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য ৩৬ মিনিটও আন্দোলন করতে পারেনি। তাঁর চিকিৎসার জন্য ৩৬ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছে। বিএনপিকে আজকের এই সমাবেশ থেকে আলটিমেটাম দিলাম ৩৬ দিনের, এর মধ্যে ঠিক হয়ে যান।

এই ৩৬ দিনের মধ্যে বিএনপিকে আগুন সন্ত্রাস, নাশকতার রাজনীতি ছাড়তে হবে, গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে। নতুবা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে অপরাজনীতির কালো হাত গুঁড়িয়ে দেব। বিএনপি যদি অস্ত্র নিয়ে আসে ওই হাত ভেঙে দিতে হবে। আগুন নিয়ে আসলে ওই হাত পুড়িয়ে দিতে হবে। যেমন কুকুর, তেমন মুগুর।

সোমবার বিকালে রাজধানীর উত্তরায় ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত ‘শান্তি ও উন্নয়ন’ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি ভর করেছে ভিসানীতির ওপর আর আওয়ামী লীগ জনগণের শক্তির ওপর। কারও নিষেধাজ্ঞা ও খবরদারিতে বাংলাদেশে নির্বাচন চলবে না। ভিসানীতি, নিষেধাজ্ঞার তোয়াক্কা আমরা করি না। যারা ভিসানীতি, নিষেধাজ্ঞা দেয়, তাদের দেশেই গণতন্ত্র ত্রুটিমুক্ত নয়।

মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। কিছুই তারা করতে পারছে না। আমরা পরোয়া করি বাংলাদেশের জনগণকে। বাংলাদেশের জনগণ ছাড়া কোনো ভিসানীতি, নিষেধাজ্ঞা মানি না, মানব না। আমাদের নির্বাচন আমরা করব। সংবিধান বলে দিয়েছে কীভাবে নির্বাচন হবে।

সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেন, দেশে ভোটের সংস্কৃতি নষ্টকারী দল বিএনপি। খুনির দল বিএনপি। আগামী নির্বাচনে দেশের জনগণ বিএনপিকে বর্জন করবে বলেই তারা বিদেশে বসে পলাতক সন্ত্রাসী, দণ্ডিত তারেক রহমান ষড়যন্ত্র করছে। দেশের জনগণ আওয়ামী লীগের সঙ্গে আছে। কোনো ষড়যন্ত্রই কাজ হবে না। নৌকার জয় হবেই ইনশাআল্লাহ।

আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, বিএনপি আমাদের আলটিমেটাম দিয়েছে। তারা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায়। আমরা যারা আওয়ামী লীগের কর্মী আছি, তাদের দায়িত্ব নেত্রীকে পাহারা দেওয়া। তাঁর হাতকে শক্তিশালী করা। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত রাজপথে ঐক্যবদ্ধ থেকে আবারও বঙ্গবন্ধুকন্যাকে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করব। তিনি বলেন, অনেক আরাম আয়েশ করেছি। এখন মাঠে থাকবে হবে। যেখানেই সন্ত্রাস-নাশকতা সেখানেই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের শিক্ষা সম্পাদক শামসুর নাহার চাপা, স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, কেন্দ্রীয় সদস্য আনোয়ার হোসেন, সাহাবুদ্দিন ফরাজী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাদেক খান এমপি, হাবিব হাসান এমপি, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা।

সোনালী/জেআর