ঢাকা | জুলাই ১৭, ২০২৪ - ১:২১ পূর্বাহ্ন

পবার সেই কোল্ড স্টোরেজের চুরির ঘটনা উদঘাটন

  • আপডেট: Saturday, September 9, 2023 - 7:15 pm

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মহানগরীর পবা থানা এলাকার রাজ কোল্ড স্টোরেজের সিন্দুকের তালা ভেঙ্গে ৩০ লাখ ৬৭ হাজার টাকা চুরির চাঞ্চল্যকর রহস্য উদঘাটন করা হয়েছে। এ ঘটনায় আন্তঃজেলা চোর চক্রের ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পবা থানা পুলিশ।

গ্রেফতাকৃত আসামিরা হলো আ: জালাল শেখ (৫৯), কাদের শেখ (২৮), কামরুল ইসলাম (৪০), ইকতিয়ার বিশ্বাস(৪২), জাকির গাজী(৫৬)। জালাল বাগেরহাট জেলার সদর থানার পাতিলাখালী গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদের ছেলে এবং কাদের শেখ একই এলাকার আ: কামাল শেখের ছেলে।

কামরুল ইসলাম যশোর জেলার অভয়নগর থানার ধুলিরগাতির মৃত মতলেবের ছেলে , ইকতিয়ার বিশ্বাস কোতয়ালী থানার হামিদপুরের মৃত মোকছেদ আলী বিশ্বাসের ছেলে। জাকির গাজী নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানার কুন্দুসি গ্রামের মৃত ধলা গাজীর ছেলে। তারা সকলেই বর্তমানে যশোর কোতয়ালী থানার চাউলিয়া গ্রামে বসবাস করে।

নগর পুলিশ জানায়, গত ১২ আগস্ট বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট থানা এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতির সময় আন্তঃজেলা চোর চক্রের ৫ সদস্যকে অস্ত্রসহ ফকিরহাট থানা পুলিশ গ্রেফতার করে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তারা বিভিন্ন জেলায় চুরি, ডাকাতিসহ রাজশাহীর পবা থানার রাজ কোল্ড স্টোরেজে ভোল্ট ভেঙ্গে টাকা চুরির কথাও স্বীকার করে। বিষয়টি ফকিরহাট থানা পুলিশ আরএমপি’র পবা থানা পুলিশকে অবহিত করে।

উক্ত তথ্যের পরিপ্রেক্ষিতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাহাবুল ইসলাম ফকিরহাট থানায় উপস্থিত হয়ে গ্রেফতার হওয়া ৫ আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা কোল্ড স্টোরেজের চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করলে তাদের পুনঃগ্রেফতার এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিজ্ঞ আদালতে পুলিশ রিমান্ডের আবেদন করেন।

বিজ্ঞ আদালত আসামিদের পুনঃগ্রেফতার ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৪ দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামিরা পবা থানার রাজ কোল্ড স্টোরেজে ভোল্ট ভেঙ্গে টাকা চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।

গত শুক্রবার পবা থানা পুলিশ আসামিদের আদালতে প্রেরণ করলে আসামি জালাল শেখ নিজের দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৫ জুন রাতে মাঝ বয়সী তিন ব্যক্তি কাপড় দিয়ে মুখ ঢেকে পবা থানার বড়গাছী গ্রামে রাজ কোল্ড ষ্টোরেজের ভিতরে প্রবেশ করে।

পরে তারা অফিসের গেটের তালা ও ক্যাস রুমের তালা ভেঙ্গে অফিসে প্রবেশ করে ভোল্টের তালা ভেঙ্গে ৩০ লাখ ৬৭ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায়।

রাজ কোল্ড স্টোরেজের মালিক আহসান উদ্দিন সরকারের উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে পবা থানায় ঐ দিন একটি চুরির মামলা রুজু হয়।

সোনালী/জেআর