ঢাকা | জুলাই ২০, ২০২৪ - ৯:০৫ অপরাহ্ন

এইচএসসিতে ভুল প্রশ্ন: ৪২ পরীক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন অনিশ্চিত

  • আপডেট: Wednesday, September 6, 2023 - 10:49 am

অনলাইন ডেস্ক: শরীয়তপুরে এইচএসসি পরীক্ষায় ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়ে ভুল প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়েছে। এতে ৪২ পরীক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অভিযোগ দিয়েছে তারা।

মঙ্গলবার শরীয়তপুর সদর উপজেলার ডোমসার জগৎচন্দ্র ইনস্টিটিউট কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে। শিক্ষার্থীরা সবাই নড়িয়া উপজেলার ডগ্রী ইসমাইল হোসেন স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছে।

কেন্দ্রে দায়িত্বরতদের ইতোমধ্যে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে বলে জানান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জ্যোতি বিকাশ চন্দ্র।

পরীক্ষা কেন্দ্রের সহকারী সচিব রতন চন্দ্র দাস ভুল প্রশ্নপত্র সরবরাহ করার বিষয়টি স্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের বয়স হয়েছে, দৈবক্রমে এমন ঘটনা ঘটেছে। তাড়াহুড়া করতে গিয়ে এমন ভুল হয়েছে।’

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা যায়, লিখিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ভুল ছিল। এই প্রশ্নে এক ঘণ্টা ২০ মিনিট পরীক্ষা দেওয়ার পর পরিদর্শকরা বিষয়টি বুঝতে পারেন। পরে নতুন প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়।

কিন্তু সময় না বাড়িয়ে নির্দিষ্ট সময়ে খাতা কেড়ে নেওয়া হয়। এতে শিক্ষার্থীরা অধিকাংশ উত্তর লিখতে পারেনি। এতে তারা অকৃতকার্য হওয়ার শঙ্কায় ভুগছে।

শিক্ষার্থী হাবিবাতুস সাদিয়া জানায়, ‘আমরা কেউ ২০টি আবার কেউ ৩০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে পেরেছি। এতে অকৃতকার্য হওয়ার শঙ্কা রয়েছে।

বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য বারবার আমাদের ওপর চাপ প্রয়োগ করা হয়েছে। ডিসি স্যারের কাছে এসেছি। আশা করি, তিনি সমাধান দেবেন। তা না হলে শিক্ষাজীবন নষ্ট হয়ে যাবে। দোষীদের শাস্তি চাই।’

কানিজ ফাতিমা জানায়, পরীক্ষার ফল খারাপ হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য প্রয়োজনীয় নম্বর পাব কিনা তা নিয়ে সন্দিহান। সজল হোসেন বলে, পরীক্ষার হলে কোনো ম্যাজিস্ট্রেট আসেননি। হলে চুপ থাকতে বাধ্য করা হয়েছে। আশা ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবো, কিন্তু ভর্তির ন্যূনতম পয়েন্ট পেতে কষ্ট হবে।

ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক জিএম সামিউল ইসলাম বলেন, যাদের অসতর্কতার কারণে এমন ভুল হয়েছে, তাদের উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে।

ইউএনও জ্যোতি বিকাশ চন্দ্র বলেন, প্রশ্নপত্রের সেট-২ এর পরিবর্তে ভুলক্রমে সেট-৪ সরবরাহ করা হয়। কেন্দ্রে দায়িত্বরতদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীদের বিষয়টি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ বোর্ডে জানানো হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোনালী/জেআর