ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৬, ২০২৪ - ১২:০৮ পূর্বাহ্ন

যে কারণে বাস ধর্মঘটের ডাক দিলেন নওগাঁর শ্রমিকরা

  • আপডেট: Wednesday, August 9, 2023 - 12:22 am

অনলাইন ডেস্ক: প্রায় দেড় মাস আগে এক সড়ক দুর্ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া বাস চালকের মুক্তির দাবিতে নওগাঁর অভ্যন্তরীণ রুটে অনির্দিষ্টকালের জন্য বাস ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন শ্রমিকেরা।

মঙ্গলবার থেকে তারা এই ধর্মঘটের ডাক দেয়। এতে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বাস ধর্মঘটের কারণে ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। অনেকেই পরিবহন ধর্মঘটের বিষয়ে কিছু জানেনও না।

বিকেল ৩টার দিকে নওগাঁ সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী হৃদয় শহরের বালুডাঙ্গা বাসস্টান্ডে দাঁড়িয়ে বলেন, ‘বাড়িতে আমার মা অসুস্থ। মাকে দেখতে পোরশায় গ্রামের বাড়িতে যেতে চাই। সকাল থেকে অনবরত বৃষ্টি হওয়ায় বের হতে পারেনি। দুপুরে বৃষ্টি থামায় বাড়িতে যাওয়ার জন্য বাস ধরতে স্টান্ডে এসে দেখি চলছে না। বাস ধর্মঘটের খবর আমি জানতাম না। এখন বিকল্প উপায়ে সিএনজিতে করে বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা করছি। কিন্তু সিএনজির ভাড়া চাইছে দ্বিগুণেরও বেশি।’

পত্নীতলা উপজেলায় যাওয়ার জন্য স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন রায়হান। তিনি বলেন, ‘আমি পরিবহন ধর্মঘটের কথা জানি না। পত্নীতলায় জরুরি কাজে যেতে টার্মিনালে এসে পরিবহন ধর্মঘটের কথা জানতে পারি। এখন আমাকে বিকল্প যানবাহনে যেতে হবে।’

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন ও বাস মালিক সমিতি সূত্রে জানা যায়, গত ১ জুলাই নওগাঁ-সাপাহার রুটে চলাচলকারী একটি বাসের ব্রেক ফেল করায় চালক গাড়িটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন।

এতে নওগাঁ শহরের জলিল পার্ক এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারানো বাসটির সঙ্গে দুটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। দুর্ঘটনা কবলিত বাস ও মাইক্রোবাসে থাকা যাত্রী ছাড়াও পার্কে ঘুরতে আসা বেশ কয়েকজন দর্শনার্থীসহ ওই ঘটনায় অন্তত ২০ জন মানুষ আহত হন।

পরবর্তীতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে একজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়। ওই মামলার বাসের চালক ইমরান হোসেন গত ১৭ জুলাই আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান।

গত রোববার পরবর্তী শুনানিতেও আদালত ওই চালকের জামিন নামঞ্জুর করেন। বাসচালক ইমরানসহ সাস্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন দুর্ঘটনার মামলায় নওগাঁ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাতজন শ্রমিক কারাগারে রয়েছেন।

ইমরানসহ গ্রেপ্তার সকল শ্রমিকের মুক্তির দাবিতে মঙ্গলবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য জেলার অভ্যন্তরীণ রুটে বাস ধর্মঘটের ডাক দেন সাধারণ শ্রমিকরা।

নওগাঁ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন কিংবা বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে এই ধর্মঘট ডাকা হয়নি। ধর্মঘট ডেকেছেন সাধারণ শ্রমিকরা। সাধারণ শ্রমিকরা জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন ও বাস মালিক সমিতির বর্তমান কমিটির নেতাদের কাছে গ্রেপ্তার-হয়রানি বন্ধে পুলিশসহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে দেন দরবার করতে বললেও তারা সেটা করেনি। বাধ্য হয়ে নিজেদের দাবি আদায়ে শ্রমিকেরা ধর্মঘট ডেকেছেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত শ্রমিকদের এই ধর্মঘট চলবে।’

জেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘সম্প্রতি আদালতে হাজিরা দিতে গেলে এক চালককে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাসচালক ও হেলপাররা ওই বাসচালকসহ গ্রেপ্তার অন্যান্য পরিবহন শ্রমিকদের মুক্তির দাবিতে কর্মবিরতি পালনের ডাক দিয়েছেন। এ অবস্থায় বাধ্য হয়ে মালিকরা বাস রাস্তায় নামাতে পারছে না। এখন বাস কবে চলবে এটা শ্রমিকদের ওপর নির্ভর করছে।’

নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফয়সাল বিন আহসান বলেন, গত ১ জুলাই সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় এক ভুক্তভোগী বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় জামিন নিতে গিয়ে অভিযুক্ত বাসচালককে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

ওই চালকের মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে পুলিশের কিছু করার নেই। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই ওই চালককে মুক্তি নিতে হবে। মামলাটির সংশ্লিষ্ট তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই দুর্ঘটনার মামলার বিষয়টি তদন্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়ার বিষয়ে কাজ করছেন।

সোনালী/জেআর