ঢাকা | জুলাই ২০, ২০২৪ - ১০:৪৮ অপরাহ্ন

কর্মসূচি পালনে নেতাদের অবহেলা, ব্যবস্থা নিচ্ছে বিএনপি

  • আপডেট: Wednesday, August 9, 2023 - 8:00 am

অনলাইন ডেস্ক: ঢাকার প্রবেশমুখে অবস্থান কর্মসূচি সফল করতে দায়িত্ব পালনে নেতাদের অবহেলা ও নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছে বিএনপি।

এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে মঙ্গলবার ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণকে দায়িত্ব থেকে সাময়িকভাবে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁর পদে সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি রাশেদ ইকবাল খানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়েছে।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়। অবশ্য বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়, ‘কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের অসুস্থতার কারণে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।’

অবশ্য দলটির একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, গত ২৯ জুলাই ঢাকার প্রবেশমুখে অবস্থান কর্মসূচিতে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ওই দিন যথাসময়ে উত্তরার বিএনএস টাওয়ারের সামনে হাজির হতে পারেননি তিনি।

যদিও তাঁর অনুসারীদের মতে, সেদিন সকালে ধানমন্ডির বাসা থেকে বের হয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সরকারদলীয় নেতাকর্মীর বিভিন্ন ব্যারিকেড অতিক্রম করে নির্ধারিত সময়ের কিছুক্ষণ পর উত্তরার অবস্থান কর্মসূচিতে তিনি হাজির হয়েছিলেন। তিনি যখন পৌঁছান ততক্ষণে পুলিশ ও সরকারি দলের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীর সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায়।

জানা গেছে, শুধু কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণই নন; সেদিন যারা কর্মসূচি সফল করতে দায়িত্বে অবহেলা করেছেন এবং যাদের ভূমিকার কারণে অবস্থান কর্মসূচি ব্যর্থ হয়েছে; তাদের সবার বিরুদ্ধেই অনুসন্ধান চলছে।

অনেককে তাৎক্ষণিক ভর্ৎসনা করা হয়েছে; অনেককে শেষবারের মতো সুযোগ দেওয়া হয়েছে। আবার অনেককে কৌশলে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে সাইডলাইনে বসিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

দলীয় সূত্র জানায়, ২৯ জুলাই রাজধানীর চারটি স্থানে দায়িত্বশীল নেতাদের ভূমিকা পুঙ্খানুপুঙ্খ যাচাই করছেন দলের হাইকমান্ড। এদের মধ্যে অনেককে ওই দিন ফোন করেও পাওয়া যায়নি। অনেকে নির্দিষ্ট স্থানে না গিয়ে নিজের সেফমতো মিছিল করে শুধু ফেসবুকে ছেড়েছেন। অনেকে নেতাকর্মীর সঙ্গে সমন্বয় না করে বোকার মতো গ্রেপ্তার হয়েছেন।

অনেকে সংঘর্ষের পরপরই নেতাকর্মী রেখে পালিয়ে গেছেন। অনেকে দায়িত্বশীল নেতাকে ব্যর্থ করতে নিজের অনুসারীদের না নিয়ে নিজে এককভাবে মাঠে হাজির হয়েছেন। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান তদন্ত টিম করে ওই দিনের ঘটনার সার্বিক প্রতিবেদন তৈরি করেন বলে সূত্র জানিয়েছে।

দলের নেতারা জানান, সে তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে দলের হাইকমান্ড সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে শুরু করেছেন। অনেকের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হলেও অনেককে আগামীতে দলের পদ-পদবি কিংবা মনোনয়নের ক্ষেত্রে এসব আমলনামা সামনে আনা হবে বলে সতর্ক করেছেন শীর্ষ নেতা।

সোনালী/জেআর