ঢাকা | এপ্রিল ১৮, ২০২৪ - ২:৫৯ পূর্বাহ্ন

রেকর্ড টার্গেটে জয়ের অপেক্ষা

  • আপডেট: Saturday, June 17, 2023 - 10:00 am

অনলাইন ডেস্ক: টেস্ট ক্রিকেটে প্রতিপক্ষকে টার্গেট দেওয়ার নতুন রেকর্ড গড়ল বাংলাদেশ। গতকাল মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে আফগানিস্তানকে ৬৬১ রানের টার্গেট দিয়েছে স্বাগতিকরা। টাইগারদের রেকর্ড টার্গেটে পিষ্ট সফরকারীরা। ২০২১ সালে জিম্বাবুয়েকে সর্বোচ্চ ৪৭৬ রানের টার্গেট দিয়েছিল বাংলাদেশ।

গতকাল তা টপকে নতুন ইতিহাস গড়ল ক্যাপ্টেন লিটনের দল। প্রথম ইনিংসে ২৩৬ রানে এগিয়ে থেকে ব্যাট করতে নেমে নাজমুল হোসেন শান্ত এবং মুমিনুল হকের সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশ ৪ উইকেটে ৪২৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করে। জয়ের জন্য আফগানদের টার্গেট দাঁড়ায় ৬৬২ রান। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ১৪৬ রানে অলআউট হওয়া আফগানিস্তান দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেট হারিয়ে করেছে ৪৫ রান।

জয়ের জন্য তাদের দরকার আরও ৬১৭ রান। অসম্ভব এক টার্গেট। আর বাংলাদেশের দরকার মাত্র ৮ উইকেট। খেলার এখনো দুই দিন বাকি।

টাইগারদের জন্য জয়টা যেন কেবলই সময়ের ব্যাপার। অন্যদিকে, প্রাকৃতিক দুর্যোগ কিংবা অন্য কোনো কারণে টানা দুই দিন নষ্ট না হয়ে গেলে এ ম্যাচ বাঁচানো আফগানদের জন্য প্রায় অসম্ভব। প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও সেঞ্চুরি করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। মুমিনুল হকের পর দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে এক টেস্টে দুই সেঞ্চুরি করার নতুন ইতিহাস গড়লেন তিনি। প্রথম ইনিংসে ১৪৬ রানের ক্যারিশমেটিক ইনিংসের পর গতকাল ১২৪ রানের আরেক অসাধারণ ইনিংস খেলেছেন শান্ত।

মুমিনুল করেছেন অপরাজিত ১২১ রান। ১৫ বাউন্ডারিতে ১৫১ বলে অসাধারণ এক ইনিংস। এ ছাড়া জাকির হাসান ৭১ এবং অপরাজিত ৬৬ রান করেছেন লিটন।

দুই বছর পর সেঞ্চুরি করেছেন ‘বাংলার ব্র্যাডম্যান’ ব্যাটার মুমিনুল হক। এক সময় সেঞ্চুরি যেন ডালভাতের মতো ছিল এ ব্যাটসম্যানের। কিন্তু ১১তম সেঞ্চুরির পর যেন আটকে গিয়েছিলেন। অবশেষে ২৬ ইনিংসের পর ১২তম সেঞ্চুরি পেয়ে মুমিনুলের স্বস্তি, ‘সেঞ্চুরি করেছি। দলের প্রয়োজনে ভালো খেলতে পেরে ভালো লাগছে। আশা করছি সামনে এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চেষ্টা করব। ’

৩৭০ রানের লিড নিয়ে গতকাল ব্যাটিং শুরু করে বাংলাদেশ। দুই ব্যাটার জাকির হাসান ও নাজমুল হোসেন শান্ত শুরু থেকেই আফগান বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলতে থাকেন। তবে ব্যক্তিগত ৭১ রান করার পর রান আউট হয়ে যান জাকির। শান্তর সঙ্গে তার জুটি ছিল ১৭৩ রানের।

জাকির প্যাভিলিয়নে ফিরলে মুমিনুলের সঙ্গে ৮৩ রানের আরেকটি জুটি গড়েন শান্ত। এরপর খানিকটা ছন্দপতন। ৮ রানের মধ্যে দুই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। শান্তর পর দ্রুত আউট হয়ে যান মুশফিক। তবে পঞ্চম উইকেটে ক্যাপ্টেন লিটনের সঙ্গে ১৪৩ রানের অপরাজিত জুটি গড়ে বাংলাদেশকে রানের পাহাড়ে পৌঁছে দেন মুমিনুল। কাল তৃতীয় সেশনের মাঝামাঝি সময় ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ।

শেষ বিকালে খেলতে নেমে বাংলাদেশের পেসারদের তোপের মুখে পড়েন আফগান ব্যাটাররা। ইনিংসের প্রথম বলেই উইকেট তুলে নেন পেসার শরিফুল ইসলাম। আরেক পেসার তাসকিন এসে তার প্রথম ওভারেই আফগান দুর্গে দ্বিতীয় আঘাত হানেন। এই গতি তারকার এক বাউন্সারে মাথায় আঘাত পেরে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন আফগান দলপতি হাশমতউল্লাহ শহীদি।

বাংলাদেশের ব্যাটারদের বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ের পর বোলারদের তান্ডবে রীতিমতো দিশাহারা আফগানরা। তাদের বোলাররা যেমন বাংলাদেশের ব্যাটারদের সামনে সুবিধা করতে পারেননি তেমনি তাদের ব্যাটাররা অস্বস্তি নিয়ে ফেস করছেন টাইগারদের বোলিং আক্রমণ। তাদের হাতে আছে ৮ উইকেট। এখন দেখা যাক, আজ তাসকিন-শরিফুলদের সামনে কতক্ষণ টিকতে পারেন!

সোনালী/জেআর