ঢাকা | এপ্রিল ২৩, ২০২৪ - ১:০৬ অপরাহ্ন

‘পাস না করলে জামায়াত-বিএনপির মার খাবেন’

  • আপডেট: Tuesday, June 6, 2023 - 2:00 am

অনলাইন ডেস্ক: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আগামী সংসদ নির্বাচনে জরিপ দেখেই মনোনয়ন দেওয়া হবে। আমি নিয়মিত জরিপ করছি। যারা জরিপে এগিয়ে থাকবেন, পাস করতে পারবেন, তাদেরই মনোনয়ন দেওয়া হবে। পাস করতে পারলে ভালো থাকবেন, না করতে পারলে জামায়াত-বিএনপির হাতে মার খাবেন।

গতকাল দুপুরে গণভবনে দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে আগত আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি তাদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন।

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বৈঠক সূত্র জানান, শুরুতেই বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে আগত নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে পাঁচ মিনিট বক্তৃতা করেন শেখ হাসিনা। এরপর নেতা-কর্মীদের কথা বলার সুযোগ দেন তিনি। এ সময় ৩০-৩৫ নেতা-কর্মী কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের কথা মনোযোগ দিয়ে শোনেন।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি নিয়মিত জরিপ করছি। সামনে নির্বাচন অনেক কঠিন হবে। নির্বাচিত হওয়ার মতো জনপ্রিয়তা আছে- এমন ব্যক্তিকেই মনোনয়ন দেব। দলের মনোনয়ন সবাই চাইতেই পারেন। দাবি করলেই মনোনয়ন তো হবে না। জনপ্রিয়তা থাকতে হবে। বর্তমানে যারা এমপি আছেন, ভালো কাজ করছেন, তারাও মনোনয়ন পেতে পারেন। আর যারা জনবিচ্ছন্ন হয়েছেন, তারা পাবেন না- এটা সাফ কথা। ছয় মাস পর পর জরিপ করছি। জরিপ দেখেই মনোনয়ন দেওয়া হবে। কার কোথায় কী অবস্থা, কে কাজ করছে, কার জনপ্রিয়তা আছে, কার নেই, সব আমার জানা আছে। বিজয়ী হওয়ার মতো লোককেই নৌকা দেওয়া হবে। জিততে পারলে ভালো, না পারলে বিএনপি-জামায়াতের হাতে মার খাবেন।

এ সময় অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিরসনের তাগিদ দেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগকে কেউ হারাতে পারে না। যখনই আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকে তখনই জয় এসেছে। সামনে অনেক ধরনের ষড়যন্ত্র, চক্রান্ত হবে। কাজেই সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে।

মনে রাখবেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছে বলেই দেশে উন্নয়ন হচ্ছে। ডিজিটাল বাংলাদেশকে স্মার্ট বাংলাদেশের দিকে নিয়ে যাচ্ছি। দেশে রাজনৈতিক সহিংসতা কমে গেছে। বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকতে কী করেছিল সেটা মনে রাখবেন। কাজেই দলের ঐক্যের বিকল্প নেই।

সোনালী/জেআর