ঢাকা | জুলাই ১৯, ২০২৪ - ১১:২২ অপরাহ্ন

প্রাইভেট না পড়ায় ছাত্রীকে স্কুল থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ

  • আপডেট: Wednesday, May 31, 2023 - 9:55 pm

অনলাইন ডেস্ক: প্রাইভেট না পড়ায় ছাত্রীকে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে কাহালু উপজেলার পাঁচপীর মাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে। ঘটনার এক সপ্তাহ পরেও বিদ্যালয়ে ফিরতে পারেনি ওই ছাত্রী।

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী মনিকা আক্তার। তিনি কাহালু উপজেলার কালিশপুরী গ্রামের আব্দুল মেমিনের মেয়ে।

প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান ইংরেজি বিষয়ে প্রাইভেট পড়ান। একই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী মানিকা আক্তার অন্য এক শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়ে। এ জন্য দীর্ঘদিন যাবত প্রধান শিক্ষক তাকে নানা বিষয়ে কটু কথা বলে আসছিলেন।

গত ২৩ মে সকালে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার আগে বান্ধবীর সঙ্গে সে বিদ্যালয়ের সামনে বসে ছিল। বিষয়টি বুঝতে পেরে প্রধান শিক্ষক তাকে ডেকে পাঠান। বলেন, তোমার মতো ছাত্রী আমার দরকার নেই। বের হয়ে যাও। এ সময় তিনি অন্য ছাত্রীদের তার সঙ্গে কথা বলতে নিষেধ করেন। ঘটনার এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও সে বিদ্যালয়ে যেতে পারেনি।

মনিকা আক্তার বলে, ‘উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে অভিযোগ দেওয়ার পর দুইজন মোটরসাইকেলে এসে রাস্তার মধ্যে আমাকে আটকে অভিযোগ ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য হুমকি দিয়েছে। এক সপ্তাহ হচ্ছে ভয়ে আমি বিদ্যালয়ে যাই না। বিদ্যালয় থেকে আমার অভিভাবককেও ডাকেনি। আমি বিদ্যালয়ে যেতে চাই।

মনিকার বাবা আব্দুল মেমিন বলেন, মেয়ে ভুল করে থাকলে প্রধান শিক্ষক আমাকে ডাকতে পারতেন। কিছু না বলেই মেয়েকে বিদ্যালয় থেকে বের করে দিয়েছেন। শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানিয়েছি। তিনি ব্যবস্থা নেবেন বলেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করা হয়। কিন্তু তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি। শুধু বলেছেন, এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা তদন্ত করছেন। তাই কোনো মন্তব্য করবেন না।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোতাহার হোসেন জানান, মনিকার অভিযোগ আমলে নিয়ে রোববার তদন্ত করা হয়েছে। অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। দ্রুত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে ও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোনালী/জেআর