ঢাকা | এপ্রিল ১৬, ২০২৪ - ৬:২৪ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে মায়ের আত্মহত্যা চেষ্টা, ৯৯৯ নম্বরে ছেলের ফোনকলে উদ্ধার

  • আপডেট: Thursday, May 25, 2023 - 6:00 pm

অনলাইন ডেস্ক: মায়ের আত্মহত্যা চেষ্টার বিষয়ে জানতে পেরে ছেলে ফোন করেন ‘জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯’ নাম্বারে। ঢাকায় অবস্থানরত ছেলের ফোন কলে রাজশাহীতে আত্মহত্যা চেষ্টারত মাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এর মিডিয়া শাখার এক বিজ্ঞিপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ মে (বুধবার) রাত সাড়ে এগারোটায় ঢাকা থেকে একজন কলার ‘জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯’ নম্বরে ফোন করে জানান, তিনি ঢাকার মিরপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ওয়ার্ড বয় হিসেবে কাজ করেন, তার বয়স ছাব্বিশ বছর। ২০১৭ সালে তার পিতা মৃত্যুবরণ করেন।

রাজশাহী মেট্রোপলিটনের চন্দ্রিমা থানাধীন এলাকায় নিজবাড়িতে বসবাসরত তার মা কিছুক্ষণ আগে ফোন করে কান্নাকাটি করে বলেছেন, তিনি আত্মহত্যা করতে যাচ্ছেন।

এরপরই তিনি ফোন কেটে দেন এবং অনেকবার ফোন করার পরও আর ফোন রিসিভ করেননি। এ অবস্থায় প্রায় মাঝরাতে করার আর কোন উপায় না পেয়ে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন এবং দ্রুত তার মাকে উদ্ধারের অনুরোধ জানান।

৯৯৯ কলটেকার কনষ্টেবল সৌমিত মৈত্র কলটি রিসিভ করেছিলেন। কনষ্টেবল সৌমিত তাৎক্ষণিকভাবে রাজশাহী চন্দ্রিমা থানায় বিষয়টি জানিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ জানান। ৯৯৯ ডিসপাচার এসআই মেহেদি হাসান সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ এবং কলারের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে পুলিশি তৎপরতার আপডেট নিতে থাকেন।

সংবাদ পেয়ে রাজশাহী চন্দ্রিমা থানা পুলিশের একটি দল অবিলম্বে ঘটনাস্থলে যায় এবং উল্লিখিত বাড়িতে গিয়ে বেশ কিছুক্ষণ দরজা ধাক্কা-ধাক্কির পর কলারের মা নিজেই দরজা খুলে দিয়ে অজ্ঞান হয়ে যান।

জানা যায়, সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না বেঁধে গলায় ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। সৌভাগ্যক্রমে ঝুলন্ত অবস্থায় ওড়না খুলে তিনি নীচে পড়ে যান, ঠিক সেই মুহুর্তে চন্দ্রিমা থানার পুলিশ দল গিয়ে উপস্থিত হয়।

পরে প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

চন্দ্রিমা থানা পুলিশ দলের নেতৃত্বে থাকা এএসআই লুৎফর রহমান ৯৯৯ কে এ বিষয়ে নিশ্চিত করেন। উদ্ধার হওয়া আত্মহত্যা প্রচেষ্টাকারী (৪৭) একটি প্রেমঘটিত সম্পর্কের মিথ্যা অপবাদ ও লাঞ্ছনায় আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা যায়।

২৫ মে বৃহস্পতিবার সকাল এগারোটায় কলারকে ফোন করা হলে তিনি জানান, তার মা এখন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। বিকালের দিকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ নিয়ে মাকে বাড়িতে নিয়ে যাবেন বলে জানান তিনি।

সোনালী/জেআর