ঢাকা | এপ্রিল ১৫, ২০২৪ - ১২:০১ পূর্বাহ্ন

ধর্ষণের মেডিকেল পরীক্ষায় হেনস্তার শিকার গৃহবধূ

  • আপডেট: Monday, May 1, 2023 - 12:15 am

অনলাইন ডেস্ক: পুলিশের নির্দেশে শারীরিক পরীক্ষা করাতে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে যান ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ। কিন্তু হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) আবদুল মানিক নামে এক স্বাস্থ্যকর্মী তাঁকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে।

ভুক্তভোগী ধর্ষণের ঘটনায় মাইদুল ইসলাম রাব্বি এবং নির্যাতনের অভিযোগে মানিকের বিরুদ্ধে পাবনা সদর থানায় পৃথক মামলা করেছেন।

ভুক্তভোগী জানান, ঈদুল ফিতরের দিন তাঁর ভাড়া বাসায় বেড়াতে আসেন দূর সম্পর্কের ভাশুর মাইদুল ইসলাম রাব্বি। স্বামী বাসায় না থাকার সুযোগে রাতে মাইদুল ইসলাম রাব্বি তাঁকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। বিষয়টি স্বামীকে জানালে তাঁর পরামর্শে ২৪ এপ্রিল পাবনা সদর থানায় ধর্ষণ মামলা করেন ওই গৃহবধূ।

পরে পুলিশ শারীরিক পরীক্ষার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। পরীক্ষার কথা বলে অন্য একটি কক্ষে নিয়ে মানিক নিজেকে চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে শরীরের স্পর্শকাতর অঙ্গে হাত দেয় ও একপর্যায়ে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. ওমর ফারুক মীর জানান, মানিকের অপকর্মের কথা আগেও শুনেছেন তাঁরা। গৃহবধূ নিপীড়নের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। প্রতিবেদনে সত্যতা পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম জানান, ধর্ষণের মামলায় মাইদুল ইসলাম রাব্বিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। হাসপাতালকর্মী মানিককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সোনালী/জেআর