ঢাকা | এপ্রিল ১৬, ২০২৪ - ১:০৭ পূর্বাহ্ন

দেশের ‘বৃহত্তম জামাত’ ঐতিহাসিক গোড়-এ শহীদ ময়দানে

  • আপডেট: Saturday, April 22, 2023 - 12:32 pm

অনলাইন ডেস্ক: লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে দিনাজপুরের ঐতিহাসিক গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে।

শনিবার (২২ এপ্রিল) সকাল ৯টায় ঈদের নামাজের জামাত শুরু হয়। প্রায় ছয় লাখ মুসল্লি অংশ নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ঈদগাহ মাঠের সমন্বয়ক ও পৃষ্ঠপোষক সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম। ঐতিহাসিক এ ঈদের জামাতে অংশ নিতে সদর উপজেলা ছাড়াও জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও আশপাশের কয়েকটি জেলার মুসল্লিরা আসেন। নামাজ শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

জামাতে ইমামতি করেন দিনাজপুরের জেনারেল হাসপাতাল জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা শামসুল হক কাসেমি।

বৃহৎ এ জামাতকে ঘিরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ছিল কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সিসিটিভি ক্যামেরার পাশাপাশি ছিল কঠোর গোয়েন্দা নজরদারি। মাঠের আশপাশে র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আনসার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অন্যান্য সদস্যরাও ছিলেন তৎপর। সাদা পোশাকের গোয়েন্দা পুলিশের তৎপরতা ছিল অনেক বেশি।

নামাজে অংশ নেন স্থানীয় সংসদ সদস্য হুইপ ইকবালুর রহিম, জেলা প্রশাসক শাকিল আহমেদ, পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহমেদ, দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলমসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেত-কর্মী, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সর্বস্তরের জনগণ।

ঈদের নামাজের আগে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহমেদ, জেলা প্রশাসক শাকিল আহমেদ এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম।

পঞ্চগড় জেলা থেকে ঈদের জামাতে আসা রাসেল ইসলাম বলেন, এশিয়া মহাদেশের সবচেয়ে বড় ও দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করে খুব ভালো লাগল। জীবনে প্রথম লাখ লাখ মুসল্লির সঙ্গে নামাজ পড়তে পেরে ভালো লাগছে।

ঠাকুরগাঁও সদর থেকে আসা মুসল্লি আব্দুস সাত্তার বলেন, পুলিশ প্রশাসনের নজরদারি ছিল দেখার মত, প্রতিটি মুসল্লিকে প্রধান ফটকে সার্চ করার পর একজন একজন করে মুসল্লিকে ঈদগাহ মাঠে প্রবেশ করিয়েছে। বড় ঈদের জামাতে অংশগ্রহণ করতে পেরে নিজেকে অনেকটা ভাগ্যবান মনে করছি।

জেলার চিরিরবন্দর উপজেলা থেকে নামাজ পড়তে আসা শাহরিয়ার সরকার বলেন, আমি এর আগেও ঐতিহ্যবাহী গোড়-এ শহীদ ময়দানে নামাজ পড়েছি, এবার বন্ধু-বান্ধব বড় ভাইসহ সবাই মিলে আনন্দ করে একসাথে লাখ লাখ মুসল্লি নামাজ আদায় করলাম। এক সাথে সবাই মিলে নামাজ পড়ে বেশ ভালো লাগলো।

নামাজ শেষে হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, আয়তনের দিক দিয়ে এটি উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় ঈদগাহ মাঠ। এর আয়তন প্রায় ২২ একর। এবার দিনাজপুর জেলাসহ পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলার প্রায় ছয় মুসল্লি এখানে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্থায়নে এ মাঠের মিনারটি নির্মিত হয়েছে। ভবিষ্যতে এটিকে আরও সুন্দর করার সু-পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান ঈদগা মাঠের এ সমন্বয়ক।

সোনালী/জেআর