ঢাকা | জুন ২৫, ২০২৪ - ৬:১১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

উত্তরবঙ্গের ট্রেনের টিকিট দুই মিনিটেই শেষ

  • আপডেট: Friday, April 7, 2023 - 10:00 pm

অনলাইন ডেস্ক: ঈদযাত্রার আগাম টিকিট বিক্রির প্রথম দিনে রুটভেদে যাত্রীদের অভিজ্ঞতা হয়েছে ভিন্ন। উত্তরবঙ্গের ১৭ এপ্রিলের ট্রেনের টিকিট শুক্রবার সকাল ৮টায় বিক্রি শুরুর ২ মিনিটে শেষ হয়।

কিন্তু ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ও সিলেটের টিকিট রাত আটটাও সহজলভ্য ছিল। ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ হয়ে চলা ট্রেনের টিকিট সকালে ফুরিয়ে যায় কিন্তু রাতেও মিলেছে ঢাকা-খুলনার রুটের টিকিট।

গাবতলী থেকে চলা উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গের বাসের আগাম টিকিট কিনতে কাউন্টারে ভিড় ছিল না। বাস মালিকরা আশঙ্কা করছেন, অর্থনৈতিক সঙ্কট এবং ঈদের ছুটি স্বল্প বলে এবার যাত্রী হবে না। ১৬ থেকে ২১ এপ্রিলের বাসের টিকিট বিক্রি হয় শুক্রবার। ঈদের ছুটি ২০ এপ্রিল থেকে। শুধু ওই দিনের টিকিটের চাহিদা দেখা গেছে।

কালোবাজারী বন্ধে ঈদযাত্রার ট্রেনের শতভাগ টিকিট অনলাইনে বিক্রি করছে রেলওয়ে। অন্যান্য বছর স্টেশনে লাখো যাত্রীর ভিড় হলেও, এবার তা নেই। গতকাল দুপুরে কমলাপুরে দেখা যায় ২২টি কাউন্টারই যাত্রী শূন্য।

কয়েকটি কাউন্টারে ১৭ এপ্রিলের আগের ট্রেনের টিকিট বিক্রি হচ্ছে। সেখানেও উত্তরবঙ্গের টিকিট নেই। গত ১ এপ্রিল কাউন্টার কোটা উঠে যাওয়ায়, আগেই এসব টিকিট অনলাইনে বিক্রি হয়েছে।

আগে আন্তঃনগর ট্রেনের অর্ধেক টিকিট কাউন্টারে বিক্রি হতো। টিকিটের জন্য ২/৩ রাত স্টেশনে লাইন ধরতেন হাজারো মানুষ। এবার তাদের ভিড় নেই।

ফলে যাদের ইন্টারনেট ব্যবহারের সাধ্য ও সামার্থ্য নেই, তারা এবার টিকিট পাচ্ছেন না। যেসব টিকিটের চাহিদা বেশি, সেইসব তারাই পাচ্ছেন যাদের দ্রুতগতির ইন্টারনেট এবং স্মার্টফোন কিংবা কম্পিউটার আছে।

ঢাকা থেকে দিনাজপুর হয়ে পঞ্চগড় রুটে চলা একতা এক্সপ্রেস, দ্রুতযান এক্সপ্রেস এবং পঞ্চগড় এক্সপ্রেসের ১৭ এপ্রিলের ট্রেনে টিকিট সকাল ৮টা ২ মিনিটে শেষ। রংপুর হয়ে চলা রংপুর এক্সপ্রেস এবং কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসের টিকিট প্রথম ৩ মিনিটেই শেষ।

একই অবস্থা ছিল ঢাকা-চিলাহাটি রুটের ‘নীলসাগর এক্সপ্রেস’ ট্রেনের টিকিটের। আতিকুল ইসলাম নামের এক যাত্রী সকাল ৮টা ১৭ মিনিটে ফেসবুকে স্ক্রিটশট আপলোড করেন। এতে দেখা যায়, ২ মিনিটে শেষ হয়েছে ঢাকা-পঞ্চগড় রুটের সব টিকিট।

টিকিট বিক্রির দায়িত্বে থাকা সহজ-সিনোসিস-ভিনসেন্ট জেভির নির্বাহী পরিচালক সন্দীপ দেবনাথ সমকালকে জানিয়েছেন, ৮টা ১ মিনিটে ১২ লাখ টিকিট প্রত্যাশী ছিলেন তাদের সার্ভারে।

প্রথম ছয় মিনিটে ৮ হাজার টিকিট বিক্রি হয়েছে। যা উত্তরবঙ্গ এবং ময়মনসিংহ রুটের ট্রেনে আসন সংখ্যার কাছাকাছি। যারা প্রথম সেকেন্ডে প্রক্রিয়া শুরু করতে পেরেছেন, তারা টিকিট পেয়েছেন। সারাদিনে এক সেকেন্ডের জন্য সার্ভার ডাউন হয়নি।

সোনালী/জেআর