ঢাকা | জুন ১৪, ২০২৪ - ৮:৫৬ অপরাহ্ন

ছাত্রলীগ নেত্রীর র‍্যাগিংয়ে জ্ঞান হারালেন ছাত্রী

  • আপডেট: Wednesday, April 5, 2023 - 10:40 pm

অনলাইন ডেস্ক:;জামালপুরের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেফমুবিপ্রবি) হলে ডেকে নিয়ে এক ছাত্রীকে র‌্যাগিং করার অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক নূরে জান্নাতের বিরুদ্ধে।

গত সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নূরুন্নাহার বেগম হলের ২৩৪ নম্বর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ব্যবস্থাপনা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রীর অভিযোগ, জুনিয়র শিক্ষার্থীদের সামনে তাঁকে কান ধরে ১০ মিনিট দাঁড় করিয়ে রাখেন ফিশারিস বিভাগের তৃতীয় বর্ষের নূরে জান্নাত। এক পর্যায়ে জ্ঞান হারালে অন্যান্য শিক্ষার্থী এসে প্রথমে জমালপুর জেনারেল হাসপাতাল, পরে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর এ এইচ এম মাহবুবুর রহমানের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাঁর নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি করেছে।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে নূরে জান্নাত বলেছেন, ‘মেয়েটি আগে থেকেই অসুস্থ ছিল। কক্ষে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে আমিই তাঁকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে চিকিৎসা করাই।’

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থীরা দোষীদের শাস্তির দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে তিন দিনের সময় বেঁধে দিয়েছেন।

ভুক্তভোগীর অভিযোগ ও শিক্ষার্থীরা জানান, গত ৩০ মার্চ নূরে জান্নাত ব্যবস্থাপনা বিভাগের ওই শিক্ষার্থীকে ব্যক্তিগতভাবে দেখা করতে বলেন। অসুস্থ থাকার পরও রোববার দুপুরে তিনি হলে আসেন। এ সময় ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রথম বর্ষের এক ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁকে সিএসি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের এক ছাত্রের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন নূরে জান্নাত। একই সঙ্গে তিনি পরের দিন অভিযোগকারীকে নিয়ে ফের হলে আসতে বলেন।

সোমবার অভিযোগকারী ছাত্রীকে নিয়ে সকালে ভুক্তভোগী নূরে জান্নাতের কক্ষে যান। এদিনও তাঁকে একই বিষয়ে জেরা শুরু করেন এবং এক পর্যায়ে নূরে জান্নাত অকথ্য ভাষায় গালাগাল ও মানষিক নির্যাতন করেন। এ সময় শাস্তি হিসেবে জুনিয়রদের সামনে তাঁকে ১০ মিনিট কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখে।

ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করা হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যেই প্রতিবেদন দেওয়া হবে। র‌্যাগিং দেওয়ার প্রমাণ পেলে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সোনালী/জেআর