ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ৬:৪১ অপরাহ্ন

প্লাস দিয়ে চামরা টেনে কিশোরকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

  • আপডেট: Tuesday, April 4, 2023 - 7:36 pm

অনলাইন ডেস্ক: লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে চুরির অভিযোগ তুলে সোহান (১৫) নামের এক কিশোরকে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের শিকার কিশোর কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মঙ্গলবার (৪ মার্চ) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ওই কিশোরের মামা আনিছার রহমান (৪৫) বাদি হয়ে নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে কালীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এর আগে গত রবিবার (২ এপ্রিল) বিকেলের দিকে উপজেলার ভোটমারী ইউনিয়নের ব্যাঙ্গেরহাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের শিকার ওই কিশোর উপজেলার ভোটমারীর উত্তর জামির বাড়ি এলাকার মজিবর রহমানের ছেলে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত রবিবার বিকেলে কিশোর সোহান রাস্তা দিয়ে হাঁটছিলেন এমন সময় তার পায়ে কি যেন লেগে সে আঘাত পায়। পরে সে দেখতে পায় একটি টিউবয়েলের সকে । সেই সকেটটি নিয়ে চলে যাওয়ার সময় তাকে চোর মনে করে মারধর শুরু করে স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি। পরে তাকে একটি মাছের প্রজেক্টে নিয়ে গিয়ে রশি দিয়ে বেঁধে প্লাস দিয়ে চামরা টেনে নির্যাতন করা হয়।

পরে হাটুর নিচে বাঁশ দিয়ে রশি দিয়ে বেঁধে বিকেল পর্যন্ত মাছের প্রজেক্টে মধ্যযুগীয় কায়দায় প্রকাশ্যে নির্যাতন করা হয়েছে। অমানুষিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ওই কিশোর ঘটনাস্থলে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে কিশোর সোহান বলেন, আমাকে রশি দিয়ে বেঁধে রড দিয়ে মেরেছে, প্লাস দিয়ে চামড়া টেনেছে আবার বাঁশ পায়ের নিচে বেঁধে ডলা দিয়েছে। কান ধরে কয়েক বার উঠবস করিয়েছে। এমনকি আমাকে ভুট্টাক্ষেতে নিয়ে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। আমি তাদেরকে চিনি না তবে দেখলে চিনতে পারবো।

কিশোরের মামা আনিছার রহমান বলেন, আমার এই ছোট্ট ভাগিনা সকেটটি রাস্তায় পেয়েছে, তাকে চোর সন্দেহ করে ধরে বাঁশ ডলা দিয়েছে, বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন করেছে ওই এলাকার ওহাব, তাপস, রানা। এমনকি ভোটমারি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আহাদুল ইসলামের সামনেও নির্যাতন করেছে। আমি থানায় অভিযোগ করেছি, তাদের উপযুক্ত শাস্তি চাই।

কালীগঞ্জ থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এটিএম গোলাম রসুল অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে অফিসার পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি ফেসবুকে প্রকাশ পাওয়ায় অভিযুক্তরা বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সোনালী/জেআর