ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২৪ - ৯:৩৭ অপরাহ্ন

ভারতের পার্লামেন্টে রাহুল গান্ধীকে অযোগ্য ঘোষণা

  • আপডেট: Friday, March 24, 2023 - 5:00 pm

অনলাইন ডেস্ক: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বংশগত নামের পদবি নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে মানহানির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকে ভারতের পার্লামেন্টে অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে। আজ শুক্রবার লোকসভা সচিবালয়ের এক নোটিসে রাহুল গান্ধীর সদস্য পদ বাতিলের সিদ্ধান্ত জানানো হয়। খবর: টাইমস অব ইন্ডিয়া’র।

শুক্রবার সকালে কিছুক্ষণের জন্য লোকসভা হাজির হন রাহুল গান্ধী। এ সময় লোকসভার অধিবেশনে ব্যাপক হট্টগোল হয়। বিক্ষোভ-প্রতিবাদের জেরে দুপুর পর্যন্ত লোকসভার অধিবেশন মুলতবি করা হয়। এরপর চলে যান তিনি।

নেতা লোকসভায় অযোগ্য ঘোষিত হওয়ার পর জরুরি সভা ডেকেছে কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতারা গতকালই এই রায়কে আইনি ও রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করবেন বলে জানিয়েছেন। ক্ষমতাসীন বিজেপি যথারীতি রায়কে স্বাগত জানিয়েছে।

১৯৫২ সালের জনপ্রতিনিধিত্ব আইনে ৮ (৪) ধারায় বলা ছিল, নিম্ন আদালতে কোনো সংসদ সদস্য বা বিধায়ককে যদি দু’বছর বা তার বেশি কারাদণ্ড দেওয়া হয় তাহলে তাঁর সাংসদ বা বিধায়ক পদ সঙ্গে সঙ্গে খারিজ হবে না। তিনি উচ্চ আদালতে আবেদন জানাতে পারবেন।

৬০ বছর এভাবেই চলছিল। কিন্তু ২০১৩ সালের অক্টোবরে যুগান্তকারী রায় দেয় সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি একে পট্টনায়েক ও বিচারপতি এসজে মুখোপাধ্যায়ের বেঞ্চ বলে, জনপ্রতিনিধিত্ব আইনে ৮ (৪) ধারা অসাংবিধানিক। যে আদালতই কোনো সংসদ সদস্য বা বিধায়কের বিরুদ্ধে দু’বছর বা তার বেশি কারাদণ্ড দিক সঙ্গে সঙ্গে তাঁর পদ খারিজ হয়ে যাবে।

এই রায়ের পরেই সংসদ সদস্য পদ খারিজ হয়ে যায় পশু খাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় অভিযুক্ত সাবেক রেলমন্ত্রী ও আরজেডি প্রধান লালু প্রসাদ যাদবের। সম্প্রতি রাহুল গান্ধীর মতই বিতর্কিত মন্তব্য কাণ্ডে উত্তরপ্রদেশের সমাজবাদী পার্টির বিধায়ক আজম খানকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেয় এলাহাবাদ কোর্ট। সংশোধিত আইন অনুযায়ী তারপরেই বাতিল হয়ে যায় তাঁর সংসদ সদস্য পদ।

এদিকে এই ঘটনায় এদিন উত্তপ্ত হয়ে ওঠে লোকসভা। ঘটনা জানাজানি হতেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ করেছেন হয়েছে কংগ্রেস কর্মীরা। কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ সরব হয় কংগ্রেস। কংগ্রেসের সভাপতি মল্লিকার্জুন খারগে পরিস্থিতি আঁচ করে আগে থেকেই বাম, আপ, জেডিইউ, ডিএমকেসহ প্রায় ১২টি দলের সঙ্গে শুক্রবার সকালেই বৈঠক সারেন। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার অপব্যবহার নিয়ে ১৪ বিরোধী দল জোটবদ্ধভাবে সুপ্রিম কোর্টে মামলাও করে এদিন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বংশগত নামের পদবি নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে মানহানির মামলায় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেন গুজরাটের আদালত। চার বছর আগে মামলাটি করেন বিজেপি বিধায়ক ও গুজরাটের সাবেক মন্ত্রী পুর্নেশ মোদি। ‘সব চোরের নামের পদবি মোদি হয় কী করে?’– মন্তব্যের জেরে রাহুলের বিরুদ্ধে এ মামলা হয়। সাজা হওয়ার পরই রাহুলের সংসদ সদস্য পদ হারানো নিয়ে রাজনৈতিক মহলে আলোচনা শুরু হয়।

কর্ণাটকের ওয়েনাদ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য রাহুল ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যটির কোলারে এক জনসভায় পলাতক ব্যবসায়ী নিরব মোদি ও ললিত মোদির সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির নামের মিল থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে এ মন্তব্য করেছিলেন।

সোনালী/জেআর