ঢাকা | এপ্রিল ১৪, ২০২৪ - ৮:২১ অপরাহ্ন

সেজেছে রাজশাহী, চাঙ্গা নেতাকর্মীরা

  • আপডেট: Thursday, February 23, 2023 - 8:58 pm

জগদীশ রবিদাস: প্রায় আড়াই বছর পর আবারও রাজশাহীতে বিভাগীয় সমাবেশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি । ক্ষমতাসীন ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক এই দলটির সমাবেশকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই বর্ণিল সাজে সেজে উঠেছে শিক্ষা নগরী রাজশাহী।

আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি দুপুর দুইটায় রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে ওয়ার্কার্স পার্টির বিভাগীয় সমাবেশ। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখবেন দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা।

সমাবেশকে কেন্দ্র করে বদলে গেছে গেছে রেশম নগরীর চিত্র। পুরো শহরজুড়েই করা হয়েছে সাজসজ্জা। লাল রঙের বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন, দেওয়াল লিখন, আলোকসজ্জা ও তোরণ নির্মাণসহ সাজসজ্জার কাজ চলছে পুরোদমে। গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে লাগানো হয়েছে কাস্তে হাতুড়ি সম্বলিত ছোট ছোট লাল রঙের পতাকা। চলছে মাইকিংসহ প্রচার-প্রচারণাও।

সমাবেশ সফল করতে গত ১০ দিন ধরে ব্যস্ত সময় পার করছেন রাজশাহী জেলা ও মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা-কর্মীরা। ব্যস্ততা গড়িয়েছে থানা ও ওয়ার্ড পর্যন্ত। একই ধারায় কাজ করছে বিভাগের অন্যান্য জেলা ও উপজেলা কমিটিগুলোও। সমাবেশের সঙ্গে জনগণকে ওতপ্রোতভাবে জড়িত করার লক্ষ্যে প্রতিদিনই চলছে দলীয় প্রচার পত্র বিতরণ কর্মসূচী।

করোনা মহামারীর দীর্ঘ সময় পর সমাবেশ হতে যাওয়ায় অনেকটাই চাঙ্গা ও সক্রিয় হয়েছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। মূল দলের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বন্ধু সংগঠন- যুবমেত্রী, নারী মুক্তি সংসদ, শ্রমিক ফেডারেশনসহ ছাত্রমৈত্রীর নেতাকর্মীরাও সমাবেশ সফল করতে সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন।

এ ব্যাপারে মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু বলেন, সমাবেশ সফল করতে জেলা, মহানগর ও বন্ধু সংগঠনের নেতাকর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। পুরো শহরকে পোস্টার, ফেস্টুন, তোরণ ও লাল পতাকা দিয়ে সাজানো হয়েছে। গত ১০ দিন ধরে এই কর্মযজ্ঞ চলছে। সমাবেশকে কেন্দ্র করে রাজশাহীর মানুষের মাঝে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। ওয়ার্কার্স পার্টির সমাবেশ লাল পতাকার জনসমুদ্রে পরিণত হবে। আমরা এখন দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের আসার অপেক্ষায় রয়েছি।

মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু বলেন, বিভাগীয় সমাবেশকে কেন্দ্র করে দলের নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত ও উৎফুল্ল। সমাবেশকে সফল করতে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ওয়ার্কার্স পার্টি যেহেতু জনগণের পার্টি, সেহেতু বিশ্বাস করি; সমাবেশে দলীয় নেতাকর্মীদের থেকে সাধারণ জনগণের উল্লেখযোগ্য উপস্থিতি ঘটবে এবং ২৫ তারিখের সমাবেশ ঐতিহাসিক সমাবেশে পরিনত হবে।

জানতে চাইলে ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেন, সমাবেশ সফল করতে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। সব প্রস্তুতই শেষের পথে। যেহেতু ওয়ার্কার্স পার্টি রাজশাহীর সকল প্রগতিশীল আন্দোলন-সংগ্রামে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছে, সেহেতু রাজশাহীবাসী অবশ্যই আমাদের কথা শুনতে মাদ্রাসা ময়দানে যাবে। আমরা আমাদের সমাবেশের সঙ্গে জনগণকে জড়িত করতে চাই। কারণ তারাই আমাদের দলের মূল শক্তি। সেভাবেই আমরা রাজনীতি করছি, সমাবেশের প্রস্তুতিও নিচ্ছি।

সোনালী/জেআর