ঢাকা | জুন ২১, ২০২৪ - ১২:৫২ পূর্বাহ্ন

আমার সাথে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন, কাদেরকে হিরো আলম

  • আপডেট: Sunday, February 5, 2023 - 4:49 pm

অনলাইন ডেস্ক: বগুড়া-৪ আসনের উপনির্বাচনের ভোট পুনরায় গণনার আবেদন জমা দিতে আজ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে যান হিরো আলম। সেখানেই তিনি কথা বলেন সাংবাদিকদের সঙ্গে।

ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে হিরো আলম বলেন, ‘তিনি কথায় কথায় বলেন- আসুন খেলা হবে। শক্তিশালী দলের সাথে খেলতে চান। আমি ওবায়দুল স্যারকে জোর গলায় বলতে চাই, খেলা সবার সাথে করতে হবে না। আমি হিরো আলমের সাথে একটা নির্বাচনে আপনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এবং আপনি দলীয়ভাবে দাঁড়ান। এরপর আপনি সুষ্ঠু নির্বাচন দিয়ে দেখেন খেলা হয় কিনা। খেলার জন্য নাকি উনি মাঠে প্লেয়ার খুঁজে পান না। আমার সাথে একটু প্রতি কেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা দিয়ে ভোটারদের ভয় না দেখিয়ে সুষ্ঠু ভোট দিয়ে দেখেন।’

প্রসঙ্গত, শনিবার বিকেলে কামরাঙ্গীরচর সরকারি হাসপাতাল মাঠে ‘বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, নৈরাজ্য, অপরাজনীতি ও দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের’ বিরুদ্ধে ‘শান্তি সমাবেশ’ করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। এই সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের একটি বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ফখরুল সাহেব বললেন, রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যবহার করে হিরো আলমকে হারানো হয়েছে। হায়রে মায়া! হিরো আলমের জন্য এত দরদ উঠল তার। তিনি ভেবেছিলেন, হিরো আলম জিতে যাবে। কিন্তু হিরো আলম এখন জিরো হয়ে গেছে। হিরো আলমকে বিএনপি নির্বাচনে দাঁড় করিয়েছে। তারা সংসদকে ছোট করার জন্য হিরো আলমকে প্রার্থী করেছে। অবশেষে ফখরুলের স্বপ্ন ভঙ্গ হয়েছে।’

ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের রেশ ধরে হিরো আলম বলেন, ‘সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল স্যার বলেছেন, হিরো আলম জিরো হয়ে গেছে। তবে হিরো আলম কখনও জিরো হয় না। যারা হিরোকে জিরো বানাতে চায় তারাই জিরো হয়ে গেছে। সেতুমন্ত্রী আমাকে তাচ্ছিল্য করে কথা বলেছেন। তবে একজন মন্ত্রী দেশের নাগরিককে তাচ্ছিল্য করে কথা বলতে পারেন না। উনি কেন আমাকে ছোট করে কথা বলেন। উনাকে বলবো বগুড়া-৪ থেকে ভোট করুন, যে আসন থেকে আমাকে পরাজিত করা হয়েছে।’

ভোট পুনরায় গণনার আবেদন সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমার নির্বাচনী ফলাফল তারা সুষ্ঠুভাবে সম্পূর্ণ করেনি। এ নিয়ে আমার সন্দেহ ছিল। তাই সবগুলো ভোট কেন্দ্রের ফলাফল আমি জোগাড় করেছি। কিছু কেন্দ্রে আমিসহ প্রায় সব প্রার্থী অস্বাভাবিক ভোট পেয়েছে। ওই কেন্দ্রগুলো উল্লেখ করে আমি জেলা প্রশাসকের কাছে ভোট পুনরায় গণনার আবেদন দিয়েছি। তারা আমার আবেদন গ্রহণ করেছেন। তবে কবে ফল আবারও গণনা করবেন সেই বিষয়ে কিছু জানাননি। যদি তারা সাড়া না দেয় আমি হাইকোর্টে যাবো।’

বিএনপি হিরো আলমের পক্ষে কাজ করছে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বিএনপি আমার পক্ষে কাজ করলে ভোটের দিন তারা মাঠেই থাকতো। বিএনপির কোনো লোক আমার সাথে ছিল না। এইসব কিছু লোকের বানানো কথা। শুধু বিএনপির মির্জা ফখরুল স্যার নয়, সারা বিশ্ব ও বাংলাদেশ আমার পক্ষে কথা বলেছেন।’

হিরো আলম আরও বলেন, ‘আমি সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। আগামীতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চাই, যেখানে সব দল অংশগ্রহণ করবে। সবাই নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারবে।’

গত ১ ফেব্রুয়ারি বগুড়া-৪ এবং বগুড়া-৬ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেন হিরো আলম। বগুড়া-৪ আসনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত জাসদ প্রার্থীর কাছে মাত্র ৮৩৪ ভোটে হেরে যান তিনি। এরপর হিরো আলম অভিযোগ করেন, এই আসনে ভোট সুষ্ঠু হলেও গণনার সময় ফল পাল্টে দেওয়া হয়েছে, ষড়যন্ত্র করে তাকে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সোনালী/জেআর