ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ৬:৪৫ অপরাহ্ন

ভেজাল গুড় তৈরি-বিক্রির অপরাধে ৩ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

  • আপডেট: Monday, December 26, 2022 - 11:00 am

অনলাইন ডেস্ক: নাটোরের লালপুর ও বাগাতিপাড়া এলাকায় ভেজাল গুড় তৈরি, সংরক্ষণ ও বিক্রয় করার অপরাধে তিন ব্যবসায়ীকে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-৫) ও জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যৌথভাবে ভেজালবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে এই জরিমানা ও বিপুল পরিমাণ ভেজাল গুড় জব্দ করে।

সোমবার (২৬ ডিসেম্বর) সকালে র‍্যাবের দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়।

এর আগে রোববার (২৫ ডিসেম্বর) দিনগত রাতে গোয়েন্দা তথ্যের ভিক্তিতে জেলার লালপুর উপজেলার বালিতিতা ইসলামপুর, মোহরকয়া এবং বাগাতিপাড়া উপজেলার রহিমানপুর এলাকায় যৌথভাবে ভেজালবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব ও জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এসময় ভেজাল গুড়সহ তিনজনকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাদের জরিমানা করা হয়।

এতে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব-৫, সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্প কোম্পানি উপ-অধিনায়ক ও সহকারী পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম এবং জেলা
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. মেহেদী হাসান তানভীর।

ভেজাল গুড় ব্যবসায়ীরা হলেন- লালপুরের বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামের মো. সাগর হোসেন (৩২), মোহরকয়ার মো. মহসিন (৬০) ও বাগাতিপাড়ার রহিমানপুর গ্রামের মো. সেলিম রেজা (২৫)।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আটকরা দীর্ঘদিন ধরে ভেজাল গুড় তৈরি, সংরক্ষণ, বিক্রয় এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য-দ্রব্য উৎপাদন করে আসছিলেন। গোয়েন্দা তথ্যের ভিক্তিতে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে তাদের কাছ থেকে ৪ হাজার ৫০০ কেজি ভেজাল গুড়, ৭ হাজার ৬০০ লিটার চিনির সিরাপ, ৭ কেজি হাইড্রোজ, ৩০ কেজি চুন, ২০ কেজি ফিটকিরি ও ৩ লিটার টেক্সটাইল রং জব্দসহ আটক করা হয়।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর ৪৩ ধারায় লালপুরের বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামের মেসার্স সাগর গুড় কারখানার মালিক মো. সাগর হোসেনকে ৫০ হাজার টাকা, মোহরকয়ার মেসার্স মহসিন গুড় কারখানার মালিক মো. মহসিনকে ৭০ হাজার টাকা এবং বাগাতিপাড়ার রহিমানপুর গ্রামের মেসার্স সেলিম গুড় কারখানার মালিক মো. সেলিম রেজাকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পরবর্তীতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের নির্দেশক্রমে জব্দকৃত ভেজাল গুড় আলামতসমূহ উপস্থিত সাক্ষীদের সামনে ধ্বংস করা হয়। এছাড়াও জরিমানাকৃত সর্বমোট ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা সরকারি কোষাগারে জমা করা হয়েছে।

র‌্যাব-৫, সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্প কোম্পানি উপ-অধিনায়ক ও সহকারী পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম এবং জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. মেহেদী হাসান তানভীর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সোনালী/জেআর