ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ১২:২৭ পূর্বাহ্ন

মরক্কোর ‌’মরণ কামড়’ সামলে ফাইনালে ফ্রান্স

  • আপডেট: Thursday, December 15, 2022 - 4:22 pm

অনলাইন ডেস্ক: ‘খোলস’ ছেড়ে বেরোতে হলো মরক্কোর। ম্যাচের আগের দিন দলটির কোচ রেগরাগুই বলেছিলেন, ‘গোলে দুটো শট নেওয়ার জন্য বলের পজিশন রেখে, ম্যাচে কর্তৃত্ব করে কী লাভ!’ সেমিফাইনালে তার দলই পজিশন রাখলো, আক্রমণ করে ব্যস্ত রাখলো লেস ব্লুজদের। কারণ দৃঢ় রক্ষণ দেয়াল তুলে খেলা মরক্কো যে ম্যাচের ৫ মিনিটেই গোল হজম করে। ওই গোল শোধ করতে ‘মরণ কামড়’ দিয়েও ২-০ গোলে হারল আফ্রিকার দলটি। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স টানা দ্বিতীয়বার উঠলো ফাইনালে।

বুধবার রাতে অনুষ্ঠিত কাতার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আল বাইত স্টেডিয়ামে ‘লালে-লাল’ ছিল। প্রথম আফ্রিকার দল হিসেবে সেমিফাইনালে আসা মরক্কো ছিল উচ্ছ্বসিত। কিন্তু ম্যাচের শুরুতেই ডিফেন্ডার থিও হার্নান্দেজ দারুণ এক গোল করেন। জটলার মধ্যে থেকে গোলরক্ষকের একেবারে কাছ থেকে আলতো ভলিতে বল জালে পাঠান এই লেফট ব্যাক।

ওই গোল শোধ করতে ‘হাই-লাইন ডিফেন্সে’ চলে আসে মরক্কো। পুরো ম্যাচে ৬০ শতাংশ বল পায়ে রেখে আক্রমণ তুলতে শুরু করে। কোণঠাসা হয়ে পড়া ফ্রান্সের রক্ষণে লেগে ফিরে আসে অধিকাংশ আক্রমণ। তবে প্রথমার্ধে সমতায় ফেরার মতো তিনটি ভালো সুযোগ তৈরি করেছিল মরক্কো। দুটি চেষ্টা ব্যর্থ করেন ফ্রান্স গোলরক্ষক হুগো লরিস। টাচ নিলেই গোল এমন দুটি সুযোগও হারায় দলটি। কাউন্টার অ্যাটাকে বরাবরই শক্তিশালী অলিভার জিরুদ এবং কিলিয়ান এমবাপ্পেও অবশ্য প্রথমার্ধে লিড ডাবল করার সুযোগ হারান।

দ্বিতীয়ার্ধেও গোল শোধ করার প্রত্যয় নিয়েই মাঠে নামে আফ্রিকান লায়ন্সরা। ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ করে খেলতে শুরু করে। সুযোগও তৈরি করে। তবে ভেদ করতে পারছিল না ফ্রান্সের ইব্রাহিমা কোনাতে, ভারানের রক্ষণ। চাপে পড়ে যাওয়া দিদিয়ের দেশমের দল ম্যাচের ৭৯ মিনিটে লিড ডাবল করে। উসমান ডেম্বেলের বদলি নামেন তরুণ কোলো মুয়ানি। মাঠে নামার এক মিনিট হওয়ার আগেই গোল করেন তিনি। এমবাপ্পের নেওয়া মরক্কান ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে ফাঁকায় পেয়ে যান তিনি। সহজে পাঠান জালে।

ওই গোল খাওয়ার পরেও আক্রমণ তুলতে থাকে মরক্কো। শেষের আগে শেষ নয়, অন্তত একটা গোল করার চেষ্টা চালিয়ে যায় তারা। শেষ বাঁশির আগেও গোলের একদম মুখ থেকে দু’বার গোল বঞ্চিত হয় তারা। তবে ফ্রান্সের প্রতিবেশি দেশটি তাদের খেলা দিয়ে মন জয় করেছেন। এই জয়ে কাতার বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হবে ফ্রান্স ও আর্জেন্টিনা। ম্যাচটি এমবাপ্পেদের জন্য টানা দু’বার শিরোপা জয়ের। মেসিদের চ্যালেঞ্জ গত বিশ্বকাপের প্রতিশোধ নিয়ে ৩৬ বছরের বিশ্বকাপ খরা ঘোচানোর।

সোনালী/জেআর