ঢাকা | জুলাই ১৮, ২০২৪ - ১১:০৬ অপরাহ্ন

কলেজে ভর্তির অনিশ্চয়তা কাটলো লক্ষ্মী রাণীর

  • আপডেট: Tuesday, December 6, 2022 - 2:00 pm

অনলাইন ডেস্ক: কলেজে ভর্তির অনিশ্চয়তা কেটে গেছে দুস্থ শিক্ষার্থী লক্ষ্মী রাণী পালের। তার লেখাপাড়ার দায়িত্ব নিয়েছেন নেদারল্যান্ড প্রবাসী রাফিউল আলম স্বপন ও তার স্ত্রী আইটি কনসালটেন্ট লইয়েন্স। উল্লাপাড়া পৌর শহরের ঘোষগাঁতী কুমার পল্লীর গোপাল চন্দ্র পাল ও তপতী রাণী পাল দম্পতির মেয়ে লক্ষ্মী রানী।

মায়ের সঙ্গে মাটির পাতিল বানিয়ে লেখাপড়া করে এ বছর এইচ টি ইমাম গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ থেকে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পেয়েছে লক্ষ্মী। বসতবাড়ির দুই শতক ভিটে এবং একটি ভাঙ্গা ঘর ছাড়া তাদের আর কোনো সম্পদ নেই। বাবা গোপাল বাঁখে করে পাতিল নিয়ে গ্রামে গ্রামে ফেরি করে বিক্রি করে সংসার চালান। লক্ষ্মী তার বানানো পাতিলের আয় থেকে লেখাপড়া চালিয়ে এসেছে।

ভালো ফলাফল করেও কলেজে পড়ানোর সঙ্গতি ছিল না লক্ষ্মী রাণীর পরিবারের। উচ্চ শিক্ষার স্বপ্ন পূরণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল তার। গত ৩০ নভেম্বর দৈনিক সমকাল পত্রিকায় অনলাইন ভার্সনে ‘মায়ের সঙ্গে পাতিল বানানো লক্ষ্মী পেল জিপিএ ৫’ শিরোনামে একটি সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদনটি নেদারল্যান্ড প্রবাসী রাফিউল আলম স্বপন ও তার স্ত্রী আইটি কনসালটেন্ট লইয়েন্সের নজরে আসে।

প্রবাসী রাফিউল ইসলাম লক্ষ্মী রাণীর মা তপতী রাণীকে ফোন করে তার মেয়ের লেখাপাড়ার দায়িত্ব গ্রহণের কথা জানান। এ ব্যাপারে তিনি সব ধরনের সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেন বলে জানান তপতী রাণী।

লক্ষ্মী রাণী পাল জানান, লেখাপড়া অব্যাহত রাখার সুযোগ পেয়ে সে খুবই আনন্দিত।

নেদারল্যান্ড থেকে মুঠোফোনে প্রবাসী রাফিউল এই প্রতিনিধিকে জানান, সমকালে প্রকাশিত লক্ষ্মী রাণীর লেখাপড়ার অনিশ্চয়তার প্রতিবেদনটি তিনি পড়েছেন। লক্ষ্মী রাণীর লেখাপড়া অব্যাহত রাখতে তিনি ও তার স্ত্রী সব ধরনের সহযোগিতা দেবেন।

সোনালী/জেআর