ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২৪ - ১২:০৩ পূর্বাহ্ন

জেলা পরিষদ নির্বাচনে জয়ী হলেন মীর ইকবাল

  • আপডেট: Monday, October 17, 2022 - 10:58 pm

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীর সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল বিজয়ী হয়েছেন। মাত্র ৩২ ভোট বেশী পেয়ে বেসরকারি ভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। মীর ইকবাল কাপ-পিরিচ প্রতীকে পেয়েছেন ৫৯৮ ভোট ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিদ্রোহী) আক্তারুজ্জামান আক্তার পেয়েছেন ৫৬৬ ভোট।

জেলার নয়টি উপজেলার বিভিন্ন কেন্দ্রের প্রাপ্ত ভোট অনুযায়ী জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক সোমবার বিকেলে এ ফলাফল ঘোষণা করেন। এছাড়াও তালগাছ প্রতীক নিয়ে জাতীয় পার্টির সাবেক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার ইকবাল বাদল পেয়েছেন ৭ ভোট ও আরেক প্রার্থী বিএনপি নেতা আফজাল হোসেন আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৪ ভোট।

নয়টি উপজেলার কেন্দ্রের ফলাফলে দেখা গেছে, গোদাগাড়ী উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল ভোট পেয়েছেন ৬৮টি ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আখতারুজ্জামান আখতার পেয়েছেন ৭৪ ভোট, দুর্গাপুরে মীর ইকাবল পেয়েছেন ৫৫ ভোট, আখতার পেয়েছেন ৫১ ভোট, পুঠিয়ায় মীর ইকবাল পেয়েছেন ৪৫ ভোট, আখতার পেয়েছেন ৪৯ ভোট, তানোরে মীর ইকবাল পেয়েছেন ৭৩ ভোট, আখতার পেয়েছেন ৪৪ ভোট, চারঘাটে মীর ইকবাল পেয়েছেন ৪৮ ভোট, আখতার পেয়েছেন ৪২ ভোট, পবায় মীর ইকবাল পেয়েছেন ৮১ ভোট, আখতার পেয়েছেন ৮৮ ভোট, বাঘায় মীর ইকবাল পেয়েছেন ৭১ ভোট, আখতার পেয়েছেন ৪৯ ভোট, মোহনপুরে মীর ইকবাল পেয়েছেন ৪৮ ভোট, আখতার পেয়েছেন ৪৫ ভোট এবং বাগমারায় মীর ইকবাল পেয়েছেন ১১২ ভোট, আখতার পেয়েছেন ১২১ ভোট।

এর আগে সকাল থেকে রাজশাহীতে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সকালে জেলার বিভিন্ন উপজেলা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় ভোটাররা সারিবদ্ধ ভাবে লাইনে দাঁড় হয়ে ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতির বৃদ্ধি পায়। রাজশাহীর কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। রাজশাহী জেলার বিভিন্ন উপজেলার ভোট কেন্দ্রে ঘুরে সর্বত্র উৎসবমুখর পরিবেশ লক্ষ্য করা গেছে। সব কেন্দ্রেই কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল। ভোটার সংখ্যা খুব কম হলেও ভোট কেন্দ্র ও কেন্দ্রের বাইরে নির্বাচনি আমেজ ছিলো উৎসবমুখর। প্রতিটা কেন্দ্রের বুথে ছিল ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা।

নির্বিঘ্নে ভোটগ্রহণের জন্য নিরাপত্তার বিষয়টি তারা কঠোর নজরদারি করছে। নির্বাচন কর্মকর্তারা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উধ্বর্তন কর্মকর্তারা পরিদর্শন করছেন। চেয়ারম্যান প্রার্থীরাও ভোট কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

রাজশাহী জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল বলেন, নির্ধারিত সময়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। অফিস থেকে সকল কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ সিসি ক্যামেরায় পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। সবকেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী ও রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জয়ী হওয়ায় রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনসহ মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অভিনন্দন জানিয়েছেন।