ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২৪ - ১:৩৭ অপরাহ্ন

এশিয়ার সেরা শ্রীলঙ্কাকে গুঁড়িয়ে দিল নামিবিয়া

  • আপডেট: Sunday, October 16, 2022 - 1:49 pm

অনলাইন ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শুরুতেই অঘটন। এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কাকে রীতিমতো গুঁড়িয়ে দিয়েছে নামিবিয়া। বাছাইপর্বের পর্বের প্রথম ম্যাচেই ৫৫ রানে হার শ্রীলঙ্কার। প্রথমে ব্যাট করে নামিবিয়ার সংগ্রহ ছিল ৭ উইকেটে ১৬৩। জবাবে সব উইকেট হারিয়ে লঙ্কানরা করেছে মোটে ১০৮ রান।

টসে জিতে বোলিংয়ে নেমে শুরুটা দারুণ করেছিল শানাকার দল। ১৬ রানেই নামিবিয়ার দুই ওপেনারকে ফিরিয়ে চাপে ফেলে লঙ্কার বোলাররা। তবে স্টিফান বার্ডকে নিয়ে ৪১ রানের জুটি করেন অধিনায়ক ইরাসমাস। দলীয় ৭৬ রানে ইরাসমাসকে ফেরান ডি সিলভা। এরপর কিছুক্ষণের মধ্যেই বিদায় নেন স্টিফান বার্ড।

তবে জ্যান ফ্রাইলিঙ্ক এবং জেজে স্মিট মিলে গড়েন ৭০ রানের জুটি। লঙ্কান বোলারদের চার-ছয়ে ভাসিয়েছেন এই দুই ব্যাটার। দলের হয়ে ২৮ বলে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন ফ্রাইলিঙ্ক। এই ইনিংস খেলতে তিনি চারটি চার মেরেছেন। পাশাপাশি স্মিট ইনিংসের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ১৬ বলে ৩১ রান করে। লঙ্কানদের মধ্যে দুই উইকেট পেয়েছেন প্রমোদ মদুশান।

শেষ চার ওভারে ৫৭ রান হজম করেছে শ্রীলঙ্কা। বিশ্বকাপে ডেথ ওভারে নিজেদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান দিলো তারা। আর ফ্রাইলিংক ও স্মিটের ৭০ রান সপ্তম বা তার পরবর্তী উইকেট জুটিতে তৃতীয় সর্বোচ্চ।

রান তাড়া করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় শ্রীলংকা। দ্বিতীয় ওভারে ডেভিড উইজ পেয়ে যান শ্রীলঙ্কার প্রথম উইকেট। ব্যক্তিগত ৬ রান করে ফেরেন কুশল মেন্ডিস। চতুর্থ ওভারে বেন শিকোঙ্গোর তোপে বিপর্যস্ত লঙ্কান ব্যাটিং লাইন। পাথুম নিশাঙ্কা ক্যাচ দেন জেজে স্মিটকে। পরের বলেই দানুশকা গুনাথিলাকা গোল্ডেন ডাক মারেন গ্রিনের ক্যাচ হয়ে। পরের বলেও উইকেট পেতে পারতো শিকোঙ্গো, রিভিউ নিয়েও সফল হননি তিনি।

২১ রানে তিন উইকেট হারানোর পর ধনঞ্জয়া-রাজাপাকসের জুটিতে ধকল সামাল দিচ্ছিল লঙ্কানরা। তবে দলীয় ৪০ রানে ধনঞ্জয়াকে ফিরিয়ে লঙ্কান শিবিরে কাপন ধরান ফ্রাইলিঙ্ক।

এরপর ভানুকা রাজাপাকশে ও অধিনায়ক দাসুন শানাকা দলকে টেনে নিতে থাকেন। কিন্তু এই জুটি টিকতে পারেননি নামিবিয়ার বোলিং তোপে। রাজাপাকসের পর একে একে সাজঘরে ফিরতে থাকেন হাসারাঙ্গা, করুণারত্নেরা। অধিনায়ক শানাকাও দলকে জেতাতে পারেননি। তিনি আউট হন দলীয় সর্বোচ্চ ২৯ রান করে। শেষ পর্যন্ত লঙ্কানদের ইনিংস থামে ১০৮ রানে। নামিবিয়াদের হয়ে দুইটি করে উইকেট নেন ডেভিড উইজ, স্কল্টজ এবং শিকোঙ্গো।

সোনালী/জেআর