ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২৪ - ২:১৩ পূর্বাহ্ন

মেয়রকে অশালীন ভাষায় চিঠি, বোর্ড চেয়ারম্যানকে শোকজ

  • আপডেট: Friday, September 30, 2022 - 11:24 pm

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী সিটি করপোরেশন মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে অশালীন ভাষায় চিঠি দেওয়া হয়েছে। রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানের নামে ডাকযোগে এই চিঠি পেয়েছেন রাসিক মেয়র। এই ঘটনায় শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানকে শোকজ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান বলছেন, ‘চিঠিটি ভুয়া। তারা এ ধরনের কোন চিঠি পাঠাননি।’

গত ২২ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ আবু নাসের বেগ শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানকে শোকজ করেন। শোকজে বলা হয়েছে, ‘একটি গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত থেকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদার প্রতি উদাসীন এবং ঔদ্ধত্যপূর্ণ আপনার ধরণের মন্তব্য একজন দায়িত্ব¡শীল সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে সরকারি কর্মচারী বিধিমালা, ২০১৮ এর পরিপন্থী। এই অবস্থায় চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানকে আনীত উপযুক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে পত্র প্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়।’

জানা গেছে, শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানের ওই চিঠি হাতে পাওয়ার পর সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে অবহিত করেন। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ জোহরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়ে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করা হয়।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে ‘আপনার সঙ্গে আমাকে দেখা করার জন্য গেটে অপেক্ষা করতে হবে? আপনার কাছে সময় চাইতে হবে? বিষয়টি কল্পনা করা আমার জন্য দুরহ। আপনি জানেন কি আমার জা শাশুড়ি এমপি। আমার আওয়ামী পরিবারের জন্ম। ভবিষ্যতে আমিও এমপি বা মন্ত্রী হতে পারি। গাজীপুরের ও কাটাখালির মেয়রদের দিকে তাকান। বর্তমানের তাদের কি অবস্থা।’

এ ঘটনার পর রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড থেকে ব্যাখ্যা দিয়ে একটি নোটিশ জারি করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানের স্বাক্ষর স্ক্যান অথবা জাল করে আপত্তিকর চিঠিটা প্রেরণ করা হয়েছে। ওই চিঠিতে কোনো স্মারক নম্বরও ব্যবহার করা হয়নি। রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের সকল অফিসিয়াল চিঠিপত্র বোর্ড সংলগ্ন জিপিও থেকে পোস্ট করা হয়। পত্রটিতে যে ধরনের প্যাড ব্যবহার করা হয়েছে তা বোর্ডের দাপ্তরিক কাজে ব্যবহার করা হয় না।

রাসিক মেয়রকে চিঠি দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান বলেন, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড থেকে এধরনের কোন চিঠি দেওয়া হয়নি। শিক্ষাবোর্ডকে বিব্রত করতে কে বা কারা এই চিঠিটা রাসিক মেয়রকে দিয়েছে। চিঠিটা ভুয়া। স্মারক নাম্বারবিহীন চিঠি উপশহর থেকে পোস্ট করা হয় বলে জেনেছি রাসিক মেয়রের দপ্তর থেকে।

তিনি বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কোন শোকজ নোটিশ এখনও পাইনি। হাতে পেলে নোটিশের জবাব দেয়া হবে। তবে এই ঘটনার জন্য তদন্ত করার দরকার। নাহলে আরও অনেকে বিব্রতকর অবস্থা পরবে।