ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২৪ - ৫:৫২ পূর্বাহ্ন

স্বপ্নপূরণ হলো বেলায়েতের, চান্স পেলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে

  • আপডেট: Monday, September 19, 2022 - 2:50 pm

অনলাইন ডেস্ক: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ৫৫ বছর বয়সী সেই মো. বেলায়েত শেখ এবার রাজশাহীর বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর মাধ্যমে তার বিশ্বদ্যিালয়ে ভর্তির দীর্ঘদিনের আশা পূরণ হলো। তিনি ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে কমিউনিকেশন এন্ড মিডিয়া স্টাডিস ডিপার্টমেন্টে ভর্তি পরীক্ষায় চান্স পান।

এর আগে ঢাকা, জাহাঙ্গীরনগর, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় সফল না হলেও বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় তিনি সফল হয়েছেন। ভর্তি পরীক্ষায় তার রোল নং ছিল ২২৩১৩১-০০০৫।

বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিকেশন এন্ড মিডিয়া স্টাডিস ডিপার্টমেন্টের কো-অর্ডিনেটর মো. শাতিল সিরাজ বলেন, অনুষ্ঠিত ৬০নম্বরের লিখিত পরীক্ষার মধ্যে তিনি ৩২ নম্বর এবং অন্যান্য একাডেমিক ক্যারিয়ারের জন্য পেয়েছেন ৩৬ নম্বর। সবমিলে ১০০ নম্বরের পরীক্ষায় ৬৮ নম্বর পেয়ে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন বেলায়েত।

বেলায়েত শেখ জানান, এবার বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি জার্নালিজম, কমিউনিকেশন এন্ড মিডিয়া স্টাডিস ডিপার্টমেন্টে ভর্তির জন্য পরীক্ষা দিয়েছেন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে গিয়ে তিনি প্রচুর অভিজ্ঞতা লাভ করেছেন। এ অর্জনে তার বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ও লেখাপড়ার ইচ্ছা পূরণ হলো। পরীক্ষা দিতে তিনি এখন ওই এলাকায় অবস্থান করছেন।

গাজীপুর জেলার শ্রীপুর পৌরসভার কেওয়া পশ্চিমখণ্ড এলাকার মৃত হাসেন আলী শেখ ও জয়গন বিবির চার সন্তানের মধ্যে দ্বিতীয় সন্তান বেলায়েত শেখ। ১৯৬৮ সালে জন্ম নেয়া বেলায়েত, ছোট থেকেই পড়াশোনার প্রতি ছিল আগ্রহ। প্রবল আগ্রহ থাকলেও দারিদ্রের কারণে তখন তা হয়ে উঠেনি। এত বিপত্তির মাঝে ১৯৮৩ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষা (এসএসসি) যেই না মাত্র বসতে যাবে তখনই অসুস্থ হয়ে পড়েন তার বাবা হাসেন আলী শেখ। পরীক্ষার জন্য ফর্ম ফিলাপের পুরো টাকা ব্যয় হয় বাবার চিকিৎসার পেছনে। পরবর্তীতে ১৯৮৫ সালে বন্যা আর ১৯৯১-৯২ সালে মায়ের অসুস্থতার আর লেখা পড়া করা হয়নি। মা ভক্ত বেলায়েত মনে করেন, দুনিয়াতে মা বেঁচে না থাকলে এই লেখাপড়া দিয়ে কি হবে। লেগে পড়েন মাতৃসেবায়। কাঁধে নেন পুরো সংসারের দায়িত্ব।

এসএসসি দিতে না পারায় মেকানিক্যাল কোর্স করে মোটর গাড়ির ওয়ার্কশপ কাজ শুরু করেন; তা দিয়েই চলে সংসার। সঙ্গে ভাই-বোনদের পড়াশোনার দায়িত্ব পড়ে তার কাঁধে।

সবকিছু পেছনে ফেলে আবার পড়াশোনা শুরু করেন পঞ্চাশোর্ধ বেলায়েত । চলতি বছরে ঢাকা মহানগর কারিগরি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি-ভোকেশনাল) জিপিএ ৪.৪৩ নিয়ে পাস করেন। এর আগে ২০১৯ সালে বাসাবোর দারুল ইসলাম আলিম মাদ্রাসা থেকে জিপিএ ৪.৫৮ পেয়ে মাধ্যমিক সমমান দাখিল (ভোকেশনাল) পাস করেন।

সোনালী/জেআর