ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৬, ২০২৪ - ১:২৯ পূর্বাহ্ন

স্বল্পোন্নত দেশে পরিণত হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

  • আপডেট: Sunday, September 18, 2022 - 10:59 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: অগ্রগতির সূচকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার সমকক্ষ উন্নত-জাতিদের থেকে পিছিয়ে পড়ছে। জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন অফিসের সাম্প্রতিক প্রতিবেদন অনুসারে, যুক্তরাষ্ট্র গত বছর জাতিসংঘের ১৯৩টি সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে ৩২ তম স্থানে ছিল তা এক বছরে ১১ ধাপ নিচে নেমে ৪৩ তম স্থানে রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বর্তমান তালিকায় ইউক্রেন এবং কিউবাকেও পিছনে ফেলেছে, বুলগেরিয়ার ঠিক সমমানে রয়েছে। রোববার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে রুশ বার্তা সংস্থা আরটি।

সূচকগুলি জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য পূরণে একটি দেশের অগ্রগতির উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে। জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য পূরণে ১৭টি ধারা রয়েছে যা সামাজিক অগ্রগতির প্রতীক। এগুলির মধ্যে ‘নিরাপদ খাবার পানি এবং স্যানিটেশন’ এবং ‘শূন্য ক্ষুধা’ এর মতো কম সংজ্ঞায়িত লক্ষ্যগুলির পাশাপাশি ‘গুণমান শিক্ষা’ এবং ‘দায়িত্বপূর্ণ ব্যবহার এবং উৎপাদন’ এর মতো সুনির্দিষ্ট অর্জনগুলি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। তবে জাতিসংঘের ওয়েবসাইটে এগুলিকে সংস্থার ২০৩০ সালের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে। যা করতে সব সদস্য দেশ সম্মত হয়েছে।

স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশগুলি ২০২২-এর জন্য জাতিসংঘের র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে রয়েছে, ফিনল্যান্ড এক নম্বরে এবং ডেনমার্ক, সুইডেন এবং নরওয়ে শীর্ষ চারে রয়েছে৷ তালিকায় প্রথম নন-ইউরোপীয় দেশ হল জাপান, যা তালিকায় শীর্ষ ২০-এর মধ্যে ১৯তম স্থান করে নিয়েছে।

শুক্রবার দ্য কনভারসেশনের প্রতিবেদনে ঐতিহাসিক ক্যাথলিন ফ্রাইডল, মার্কিন পতনের জন্য স্পষ্টভাবে ‘বর্ণবাদ’ এবং ‘আমেরিকান ব্যতিক্রমবাদ’ কে দোষারোপ করেছেন। তিনি যুক্তি দিয়েছিলেন যে অনেক আমেরিকানকে তাদের প্রাপ্য স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, অর্থনৈতিক নিরাপত্তা এবং পরিবেশ থেকে প্রতারিত করেছে, যা গণতন্ত্রের জন্য হুমকি।

অবশ্যই, ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক সমতা এবং দুই বছরের টেকসই আয়ুষ্কাল হ্রাস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ‘সুস্বাস্থ্য এবং মঙ্গল’, ‘কোন দারিদ্র্য নেই’ এবং বৈষম্য হ্রাস করাসহ বেশ কয়েকটি লক্ষ্যের দিকে নিয়ে যাবে। তবে জাতিসংঘ এই তিনটির মধ্যে দুটিতে তার কর্মক্ষমতাকে উন্নত হিসাবে স্থান দিয়েছে, শুধুমাত্র অসমতা ক্ষেত্রে নেতিবাচক দেখাচ্ছে এবং এর পরিবর্তে ‘দায়িত্বপূর্ণ ব্যবহার এবং উৎপাদন’ এ অনুমিত পতনের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করেছে ।

এদিকে পতনশীল জাতি হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রকে উপাধি দেয়ার ক্ষেত্রে জাতিসংঘই একমাত্র সংস্থা না। দ্য ইকোনমিস্ট বিশ্বব্যাপী ‘গণতন্ত্রের রাষ্ট্র’ এর মূল্যায়নে এই বছরের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রকে একটি ‘ত্রুটিপূর্ণ গণতন্ত্র’ হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করেছে। সংবাদপত্রটি দেশগুলির নির্বাচনী প্রক্রিয়া এবং বহুত্ববাদ, সরকারের কার্যকারিতা, রাজনৈতিক অংশগ্রহণ, গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক সংস্কৃতি এবং নাগরিক স্বাধীনতাকে বিবেচনা করে।