ঢাকা | জুন ২১, ২০২৪ - ১২:২৩ পূর্বাহ্ন

শাওনের শরীরে ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গেলেও গুলি পায়নি চিকিৎসক

  • আপডেট: Friday, September 2, 2022 - 10:04 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় নিহত যুবদল কর্মী শাওন প্রধানের শরীরে দুটি ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গেছে। তবে কোনো গুলি পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শেখ ফরহাদ।

শুক্রবার দুপুরে এ কথা জানান তিনি। এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে শাওনের মরদেহের ময়নাতদন্ত করেন মফিজ উদ্দিন।

তিনি বলেন, নিহতের বুকের বা পাশে এবং পিঠের নিচের অংশে দুটি ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গেছে। গভীর ক্ষত দুটি। তবে শরীরে কোনো গুলি পাওয়া যায়নি। বুকের বা পাশে একটি এবং পিঠের নিচের অংশে আরেকটি ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গেছে।

কী কারণে শাওনের মৃত্যু হয়েছে জানতে চাইলে চিকিৎসক বলেন, এই বিষয়ে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে পরে বিস্তারিত বলা যাবে।

নিহত শাওন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার এনায়েতনগর ও বক্তাবলী ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী পূর্ব গোপালনগর এলাকার মৃত সাহেব আলীর ছেলে। নবীনগর শাহ্ওয়ার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের পেছনে শাওনদের একতলা বাড়ি।

এদিকে শাওনের মৃত্যুর পর তার রাজনৈতিক পরিচয় নিয়েও ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, শাওন ‘রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নন’। অপরদিকে বিএনপি নেতারা দাবি করেছেন, সক্রিয় কর্মী শাওন বক্তাবলী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

ময়নাতদন্তের পর রাত সাড়ে ১২টায় কড়া পুলিশ প্রহরায় তাকে দাফন করা হয়। তারপরই নিহতের বড়ভাই মিলন হোসেন নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা একটি মামলাটি করেন। মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, ‘পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষে বিএনপি নেতা-কর্মীদের ছোড়া ইট ও গুলির আঘাতে গুরুতর জখম হয়ে’ তার ভাই মারা গেছেন।

যদিও শুক্রবার দুপুরে শাওনের বাড়ি গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করে সহানুভূতি প্রকাশের সময় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তাকে যুবদলের কর্মী বলেই উল্লেখ করেন এবং অভিযোগ করেন, তার রাজনৈতিক পরিচয় নিয়ে পুলিশ ও প্রশাসন মিথ্যাচার করছে।