ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ১২:১১ পূর্বাহ্ন

চালের দর নিয়ন্ত্রণে খোলাবাজারে চাল বিক্রি শুরু

  • আপডেট: Thursday, September 1, 2022 - 11:41 pm

 

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে চালের দর নিয়ন্ত্রণে সরকার নিম্নআয়ের মানুষের জন্য খাদ্যবান্ধব ও ওএমএস কর্মসূচির মাধ্যমে খোলাবাজারে চাল বিক্রির উদ্বোধন করা হয়েছে। মুলত নিম্নআয়ের মানুষকে সহায়তা দেয়া ও বাজারদর স্থিতিশীল রাখতে সরকারের এই কার্যক্রম।

পবা উপজেলার হড়গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদে খাদ্যবান্ধব এবং নওহাটা পৌরসভায় ওএমএস এর কর্মসূচির উদ্বোধন ঘোষণা করেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফর উল্লাহ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, মাদার অব হিউম্যানিটি বা মানবতার জননী হিসেবে পরিচিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছোট ছোট উদ্যোগের মাধ্যমে সারা বিশ্বে নিজের অবস্থানকে তুলে ধরেছেন। সারা বিশ্ব যখন খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত, তখন বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণেই সে অভাব নেই।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. সালমা মমতাজ। রাজশাহী জেলা প্রশাসন ও খাদ্য বিভাগের আয়োজনে এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল। আরও বক্তব্য রাখেন নওহাটা পৌরসভার মেয়র হাফিজুর রহমান, পবা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা লসমী চাকমা ও আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক ফারুক হোসেন পাটোয়ারী।

উল্লেখ্য, সারা দেশে ৫০ লাখ মানুষের মধ্যে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১৫ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করা হচ্ছে। রাজশাহী জেলায় ৮১ হাজার ৪০০ জন প্রতিমাসে ৩০ কেজি করে এই সুবিধা পাবেন। এছাড়া ওএমএস-এ প্রতিকেজি চাল বিক্রি করা হচ্ছে ৩০ টাকায়। একজন প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫ কেজি চাল ডিলারের নিকট থেকে কিনতে পারবেন।

চারঘাট
চারঘাট প্রতিনিধি জানান, উপজেলা প্রশাসন ও খাদ্য বিভাগের আয়োজনে উপজেলায় খোলা বাজারে চাল বিক্রি (ওএমএস) কার্যক্রম শুরু হয়েছে। উপজেলার চারঘাট, সরদহ, মোক্তারপুর ট্রাফিক মোড়ে খোলা বাজারে চাল বিক্রি কর্মসূচির উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন। গরীব মানুষের মাঝে প্রত্যেক পরিবার ৫ কেজি করে ৩০ টাকা কেজি দরে নিতে পারবেন বলে জানান, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শেখ সলিউজ্জামান সজীব। এসময় উপস্’িত ছিলেন মেয়র একরামুল হক, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মানজুরা মুশাররফ, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শেখ সলিউজ্জামান সজীব, সরদহ ইউপি চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান, উপজেলা (ভারপ্রাপ্ত) খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রায়হানুল হক রানা ।

পুঠিয়া
পুঠিয়া প্রতিনিধি জানান, ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ, ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারাদেশের ন্যায় পুঠিয়ায় ওএমএসের চাল বিক্রি কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। পৌরসভা এলাকায় তিনটি ডিলারের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে চাউল বিক্রি করা শুরু হয়।

জানা গেছে, পৌরসভার ৩টি ডিলার পয়েন্টে ৩০ টাকা দরে চাউল বিক্রি করা হবে। আর একজন নিম্ন আয়ের মানুষ এক সাথে ৫ কেজি চাউল কিনতে পারবেন। এতে ১ হাজার ২শ পরিবার প্রতিদিন এই সুবিধা পাবেন। চাউল বিক্রি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জি এম হিরা বাচ্চু। এ সময় উপস্থিত উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আরাফাত আমান আজিজ।

বাঘা
বাঘা প্রতিনিধি জানান, বাঘা উপজেলা খাদ্য বিভাগের আয়োজনে চাল বিক্রি কার্যক্রম উদ্বোধনীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতার এর সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও রাজশাহী জেলা আ’লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাড: লায়েব উদ্দীন লাভলু। বাঘা উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা শামসুন্নাহার নাহার বলেন, সরকার প্রদত্ত এই সুবিধার মধ্যে পড়েছে উপজেলার বাঘা ও আড়ানী পৌরসভা। এদিক থেকে বাঘা পৌরসভার ৫ জন ডিলার এবং আড়ানী পৌরসভার ৩ জন ডিলারের মাধ্যমে বিশেষ ওএমএস ও টিসিবি সুবিধা পাবে দুইটি পৌরসভার এলাকার প্রতিদিন ২ হাজার ৮শ জন মানুষ প্রতি কেজি ৩০ টাকা দরে সর্বোচ্চ ৫ কেজি চাউল ক্রয় করতে পারবেন।

তানোর
তানোর প্রতিনিধি জানান, তানোর উপজেলার ২টি পৌরসভায় ৬টি ডিলারের মাধ্যমে ৩০ টাকা কেজি মূল্যে দরিদ্রদের মাঝে ৫ কেজি করে চাল বিক্রয়ের উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তানোর পৌর এলাকার থানা মোড়ে সুনীল ডিলারের দোকানে ৩০ টাকা কেজি ন্যায্য মূল্যে চাল বিক্রয়ের উদ্বোধন করেন তানোর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। সভাপতিত্ব করেন তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পংকজ চন্দ্র দেবনাথ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তানোর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা আজহারুল ইসলাম, কামারগাঁ ইউপি চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বী ফরহাদ, ডিলার সুনীল চন্দ্র দাস প্রমুখ।

মান্দা
মান্দা (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, মান্দায় খোলাবাজারে চাল বিক্রি কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু বাক্কার সিদ্দিক। এ সময় উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মামুনুর রশীদ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম, খাদ্য পরিদর্শক সোহেল রানা, প্রসাদপুর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন, ট্যাগ অফিসার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ, ডিলার রাশেদুল হক মোল্লা প্রমূখ।

পোরশা
পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, পোরশায় স্থানীয় খাদ্য অধিদপ্তর ও উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সরকার প্রদত্ত ওএমএস এর চাউল বিক্রি উদ্বোধন করা হয়েছে। কপালীমোড় নামক স্থানে চাউল বিক্রি কর্মসূচির উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ্ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী ও ইউএনও (ভারপ্রাপ্ত) জাকির হোসেন। এসময় উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান কাজীবুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন, নিতপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এনামুল হক উপস্থিত ছিলেন।

ধামইরহাট
ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, ধামইরহাটে খাদ্য অধিদপ্তর কর্তৃক খোলা বাজারে স্বল্পমূলে (ওএমএস) চাল বিতরণের উদ্বোধন করা হয়েছে। ধামইরহাট পৌরসভার ৩ টি কেন্দ্রে চাল বিক্রয় কার্যক্রম উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: আজাহার আলী। ইউএনও আরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ধামইরহাট পৌর মেয়র আমিনুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল রানা, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আতাউর রহমান, ভারপ্রাপ্ত গুদাম কর্মকর্তা জাহেদুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গোমস্তাপুর
গোমস্তাপুর (চাঁপাই নবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, ওএমএস কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে। রহনপুর পৌর এলাকায় এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসমা খাতুন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ুন রেজা, রহনপুর পৌর মেয়র মতিউর রহমান খান, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তারেক উর জামান, রহনপুর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাকিলা নাসরিন। উল্লেখ্য, রহনপুর পৌর এলাকার ৪টি স্থানে এই ওএমএস’র চাল দেয়া হচ্ছে। এছাড়া টিসিবি’র ফ্যামিলি কার্ডধারীরা মাসে দুইবার ওই চারটি স্থানে ডিলারের কাছ এই চাল ক্রয় করতে পারবেন।

নাটোর
নাটোর প্রতিনিধি জানান, নাটোরে একই সাথে ওএমএস এবং টিসিবি’র ভোক্তাদের মাঝে পণ্য বিক্রি কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। শহরের বন বেলঘড়িয়া বাইপাস মোড়ে অবস্থিত ওএমএস ডিলার আকরামুল হাসানের দোকানে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ড. সাবিনা ইয়াসমিন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নাটোরের জেলা প্রশাসক শামিম আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাদিম সারোয়ার, ডিসি ফুড হারুন-অর-রশিদসহ অন্যরা। জেলা প্রশাসক জানান, জেলার ৮টি পৌরসভা এলাকার ২৯টি কেন্দ্রে ৩০ টাকা কেজি দরে ৫৮ মেট্রিক টন চাউল বিক্রির মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হলো। এই কার্যক্রমে ভোক্তারা প্রতিদিন জনপ্রতি ৫ কেজি করে চাল পাওয়ার সুযোগ পাবেন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ
নিম্নআয়ের মানুষকে সহায়তা দেয়া ও বাজারদর স্থিতিশীল রাখতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে সম্প্রসারিত ওএমএস-এর চাল বিক্রি কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের নিমতলা এলাকায় কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক একেএম গালিভ খান।
এক সংবাদ ব্রিফিং-এ জানানো হয়, কর্মসূচির আওতায় খোলা বাজারে প্রতি কেজি ৩০ টাকা দরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ৬টি, শিবগঞ্জ পৌরসভার ৪টি, রহনপুর পৌরসভার ৪টি নাচোল পৌরসভার ৩টি এবং ভোলাহাট উপজেলায় ২টিসহ মোট ১৯টি ওএমএস কেন্দ্রে চাল বিক্রি করা হচ্ছে। ভোলাহাট উপজেলায় পৌরসভা না থাকলেও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সুবিধার জন্য কর্মসূচির আওতায় আনা হয়েছে।
এদিকে, সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৫ উপজেলার ইউনিয়ন পর্যায়ে কার্ডধারী জনগোষ্ঠীর মাঝে ১৫ টাকা কেজি দরে প্রতিমাসে ৩০ কেজি করে চাল বিক্রি করা হচ্ছে। এরফলে চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রায় ৬০ হাজার জনগোষ্ঠী উপকৃত হবেন।

সিরাজগঞ্জ
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, সিরাজগঞ্জে ওএমএস ও টিসিবি‘র ভোক্তাদের মাঝে খোলা বাজারে খাদ্যাসশ্য বিক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষে প্রেস ব্রিফিং করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের শহিদ শামসুদ্দিন সম্মেলন কক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মনির হোসেন এর সভাপতিত্বে প্রেস ব্রিফিং করেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এস এম সাইফুল ইসলাম। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বলেন, পৌরসভা সমুহে আজ থেকে ৩৭টি ওএমএস পয়েন্টে শুক্র ও শনিবার ব্যতীত প্রতিদিন ২ মেট্রিকটন করে ৭৪ মেট্রিক টন চাল বিক্রি করা হবে। টিসিবি‘র কার্ডধারীদের মাঝে ৫ কেজি করে মাসে ২বার চাল ক্রয় করতে পারবেন। ইউনিয়ন পর্যায়ে সিরাজগঞ্জ জেলায় ২৬৫ জন ডিলারের মাধ্যমে ১ লাখ ৪৮ হাজার ৩শ ২৭টি পরিবারকে কার্ড প্রতি মাসিক ৩০ কেজি হারে প্রতিকেজি ১৫ টাকা দরে বিক্রি করা হবে।

নওগাঁ
নওগাঁ প্রতিনিধি জানান, নওগাঁয় শুরু হয়েছে খোলা বাজারে চাল বিক্রির কার্যক্রম (ওএমএস)। একই সঙ্গে শুরু হচ্ছে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিও। বৃহস্পতিবার সকালে শহরের মুক্তির মোড়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে এর উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান। এসময় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের উপ-পরিচালক আব্দুস সোবহান, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আলমগীর কবির, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মির্জা ইমাম উদ্দিনসহ খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। খাদ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় জেলার ৯৯টি ইউনিয়নে ২০৩ জন ডিলারের মাধ্যমে ১ লাখ ১৯ হাজার ৩৮ জন দরিদ্র পরিবারের মাঝে ১৫ টাকা কেজিতে ৩০ কেজি করে চাল দেয়া হবে। এছাড়াও ওএমএস-এর মাধ্যমে জেলার নওগাঁ পৌরসভায় ১৩টি, নজিপুর পৌরসভায় ৪টি, ধামইরহাট পৌরসভায় ৩টি ও ৮টি উপজেলার ৩৬ জন ডিলারের মাধ্যমে ৩০ টাকা কেজিতে প্রতিদিন ৭২ মেট্রিক টন চাল বিক্রি করা হবে। ভোটার আইডি কার্ডের মাধ্যমে একজন একদিনে সর্বচ্চ ৫ কেজি করে চাল কিনতে পারবে।