ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ৬:৫৯ অপরাহ্ন

আউশ ধানের বাম্পার ফলনে চাষীরা খুশি

  • আপডেট: Tuesday, August 30, 2022 - 11:38 pm

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলায় চলতি মৌসুমে আউশ ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। জানা গেছে, এখানে তিন মৌসুমে ধান চাষ করেন কৃষকরা- আউশ, আমন ও বোরো। এর মধ্যে বোরো ধান সম্পূর্ণ সেচ নির্ভর। আমন আর আউশ হলো বৃষ্টি নির্ভর। বোরো ধান কাটার পরপরই আউশ ধান রোপন করা হয়।

আউশ মৌসুমে একটি জনপ্রিয় জাত হলো ব্রি ৪৮। এ জাতের আউশ ধান চাষে বিঘা প্রতি গড় ফলন হয় ১৭ মণ। আউশ চাষে সেচ খরচ লাগেনা, সারের পরিমাণও কম লাগে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ কম, রোগ ও পোকা-মাকড়ের আক্রমণও কম হয়। সাড়ে তিন মাসেই এ ফসল কৃষক ঘরে তুলতে পারে।

এতে করে খরচ কম, লাভজক হওয়ায় এবং আউশ ধানের খর গো খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করতে পারায় ও বাজার মূল্য ভালো থাকায় আউশ চাষাবাদে ব্যাপক আগ্রহ বেড়ে গেছে এ উপজেলার আউশ চাষিদের।

আউশ চাষীরা জানান, আউশ ধান চাষে বিঘা প্রতি প্রায় ১০-১২ হাজার টাকা উৎপাদন ব্যয় ও উৎপাদিত ধান বিক্রি করে প্রায় ২০-২২ হাজার ও খড় বিক্রি করে প্রায় ৩ হাজার টাকা পাওয়া যায়। আউশ ধান চাষে খরচ বাদে বিঘা প্রতি কৃষকের প্রায় ১৫ হাজার টাকা লাভ হয়। ফলে আউশ ধান চাষে কৃষক লাভবান হচ্ছে। চলতি মৌসুমে শাহজাদপুরে প্রায় ১৫ হেক্টর জমিতে আবাদকৃত আউশ ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোহাম্মদ আব্দুস ছালাম বলেন, আমাদের ভূ-গর্ভস্থ পানি অফুরন্ত না। তাই সেচ নির্ভর চাষাবাদ থেকে বের হয়ে আউশ ধানের আবাদ বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। আউশ ধানের আবাদ বৃদ্ধির লক্ষে কৃষকদেরকে প্রয়োজনীয় পরামর্শসহ প্রণোদনার মাধ্যমে সার ও বীজ দিয়েছি, প্রদর্শনী স্থাপন করেছি, আশাকরি আগামীতে আউশ ধানের আবাদ আরোও বাড়বে।